25 C
Kolkata
Wednesday, February 8, 2023
More

    স্বাধীনতা দিবসে শ্রদ্ধা । ইতিহাসের বিস্মৃত নায়ক -অসীম কুমার মিত্র

    বিপ্লব তার প্রথম সারির সন্তানদের গ্রাস করে – এবং তা অতি নির্মম ভাবে । ইতিহাস এর পাতায় তাদের নাম লেখা থাকে না । শুধু কিছু মানুষের স্মৃতিতে তাঁরা বেঁচে থাকেন । আর এই বিস্মৃতি-র মধ্য দিয়েই তারা তাঁদের প্রাপ্য সম্মানটুকু পেয়ে যান । এই এমনই এক বিস্মৃতপ্রায় বীর বিপ্লবী হলেন হাওড়া জেলা আমতা থানার অন্তর্গত রসপুর নামক এক স্বল্প খ্যাত গ্রামের শ্রীশ চন্দ্র মিত্র (হাবু) । শুধু এক স্মৃতিফলক আর আগাছাআবৃত জন্মভিটে টুকু ছাড়া তাঁর বিশেষ কিছু স্মৃতি চিহ্ন আর অবশিষ্ট নেই । শ্রীশ চন্দ্র মিত্রের জন্ম ১৮৯০ (মতান্তরে ১৮৮৭) সালে রসপুর গ্রামে । পিতার নাম শরৎচন্দ্র মিত্র, মাতা সরোজিনী দেবী । শরৎচন্দ্রের দুটি ছেলে ও তিনটি মেয়ে । ভাই-বোনদের মধ্যে সবার বড় ছিলেন হাবু । খুব অল্প বয়সেই হাবু মিত্র চলে এসেছিলেন কলকাতায় তার বাবা-মার সঙ্গে । থাকতেন ১/১ নং অভয় হালদার লেনে । ছোট থেকেই হাবু ছিলেন খুব দুরন্ত । প্রাণে তাঁর ভয় – ডরের বালাই ছিল না ।

     বাংলার বিপ্লবী আন্দোলনের সেই রক্তঝরা দিনে প্রায় নিরস্ত্র বিপ্লবীদের কাছে সবচেয়ে প্রয়োজন ছিল অস্ত্রশস্ত্রের । শ্রীশ মিত্র চাকরী করতেন ‘আর. বি. রডা কম্পানি’ -র দপ্তরে । তিনি একদিন খবর পেলেন রডা কোম্পানীর মারফৎ এদেশে প্রচুর অস্ত্রশস্ত্র আসছে তিব্বতের দালাই লামার জন্য । শ্রীশ মিত্রের সঙ্গে আত্মোন্নতি সমিতির গভীর যোগাযোগ ছিল । বউবাজারের ছাতাওয়ালা গলির এক গোপন আড্ডায় ‘যুগান্তর’, ‘আত্মোন্নতি  সমিতি’ ও ‘মুক্তি সংঘে’র কয়েকজন নেতা মিলিত হলেন । সেখানে সিদ্ধান্ত নেয়া হল, যেমন করেই হোক এই অস্ত্রসম্ভার রডা কোম্পানির গুদামে পৌঁছানোর আগেই লুট করে নিতে হবে ।

     যেমন ভাবা, তেমন কাজ । যতীন মুখার্জি, হেমচন্দ্র ঘোষ, বিপিন গাঙ্গুলি, হরিশ শিকদার, খগেন দাস, অনুকূল মুখার্জি, হরিদাস দত্ত প্রমুখ সাহসী বিপ্লবী নেতাদের সমর্থনে শ্রীশ চন্দ্র পাল এই কঠিন কাজে ব্রতী হলেন । একখানা গরুর গাড়ি জোগাড় করা হলো এবং ঠিক হলো সেই গরুর গাড়িতে রডা-র কর্মচারী শ্রীশ মিত্র অস্ত্রশস্ত্র তোলার পর সরে পড়বেন । এবং অপর বিপ্লবীরা ওই গাড়ি বোঝাই মাল নিয়ে আত্মোন্নতি সমিতির গোপন আস্তানায় চলে আসবেন । বিপ্লবীরাই গরুর গাড়ির চালক হয়ে মালাঙ্গা লেনের আস্তানার গোপন জায়গায় মালপত্র পৌঁছে দিলেন ১৯১৪ সালের ২৬ শে আগস্ট ।

    এরপর শ্রীশ মিত্র ওরফে হাবু মিত্রের পালিয়ে যাবার পালা । ডাক্তার সুরেন বর্ধন তাঁকে নানা গোপন আস্তানায় কিছুদিন লুকিয়ে রাখার ব্যবস্থা করলেন । তারপর যখন শুনলেন যে আই. বি. ‘র লোক পিছু নিয়েছে তখন এক বিশ্বাসী বন্ধু মারফত হাবু মিত্রকে পাঠিয়ে দিলেন আসামের পার্বত্য জাতি ‘রাভা’ দের আস্তানায় । এখান থেকে হাবু মিত্রের আর কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি । তাঁর সম্বন্ধে নানা ধারণা নানা জন পোষণ করলেও, আসল খবর কারো পক্ষে প্রকাশ করা সম্ভব হয়নি ।

    ধরে নেওয়া যায়, বিপদসঙ্কুল পথে চলতে গিয়ে, তিন শহীদের মৃত্যু বরণ করেছেন । তিনি ছিলেন দেশব্রতী, সর্বত্যাগী এক বিশ্বপথিক । তাঁর সাহায্যে যে সব অস্ত্রশস্ত্র বিপ্লবীদের হাতে এসেছিল বাংলার বিপ্লবী আন্দোলনকে ভারতবর্ষের স্বাধীনতা আন্দোলনের ইতিহাসে চিরস্মরণীয় করে রাখার জন্য এখনও উল্লেখিত হয় । রডার অস্ত্রেই সজ্জিত হয়ে বুড়িবালামের তীরে বাঘাযতীন, এবং তাঁর সঙ্গীরা মরণপণ সংগ্রাম করেছিলেন । বিপ্লবী রাসবিহারী বসু রাডার অস্ত্র নিয়েই বিপ্লবী জীবনের অনেক কর্মকাণ্ড সম্পাদন করেছিলেন ।

     ইতিহাসের পাতায় এই অমর বিপ্লবকে সেভাবে লিপিবদ্ধ করা হয়নি । এটা আমাদের অপরাধ । যে জাতি তার ইতিহাসের মহান স্রষ্টাদের বিস্মৃত হয় , সে জাতি কখনও তার সত্তার প্রতি সুবিচার করতে পারেনা । আমরা সেই মহান বিপ্লবীর স্মৃতিরক্ষার্থে তাঁর উদ্দেশ্যে যে স্মৃতিফলকটি নির্মাণ করেছি রসপুর পিপলস লাইব্রেরির সম্মুখ প্রান্তরে, তাঁর যথাযোগ্য মর্যাদা রক্ষা করাএবং আগামী প্রজন্মের কাছে তাঁর এই স্বদেশ প্রেম ও স্বাধীনতার অগ্নিঝরা বাণী পৌঁছে দেওয়ার দায়িত্ব আমাদের পালন করতে হবে ।

    Related Posts

    Comments

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    সেরা পছন্দ

    নিখরচায় চক্ষু পরীক্ষা শিবির

    কলকাতা ক্রীড়া সাংবাদিক ক্লাবের অর্থাৎ সিএসজেসি-‌র প্রচেষ্টায় এবং নাগরিক স্বাস্থ্য সঙ্ঘের সহযোগীতায় মঙ্গলবার সিএসজেসিতে কম্পিউটারাইজড চক্ষু পরীক্ষা শিবির অনুষ্ঠিত হল। ক্রীড়া সাংবাদিকদের...

    সবুজ মেরুনের ঘাড়ের‌ ওপর নি:‌শ্বাস বেঙ্গালুরুর :‌ রাজকুমার মণ্ডল

    জামশেদপুর ম্যাচে জয়ে ফিরতে মরিয়া এটিকে মোহনবাগান। বেঙ্গালুরুর কাছে হের একধাপ নীচে এটিকে মোহনবাগান। ১৬ ম্যাচে ২৭ পয়েন্টে পাঁচ নম্বরে সবুজ মেরুন।...

    নাগপুর টেস্টে তিন স্পিনারে নামছে ভারত :‌ রাজকুমার মণ্ডল

    ভারত-অস্ট্রেলিয়া প্রথম টেস্ট। যুদ্ধকালীন প্রস্তুতিতে দুই দলই। বর্ডার-গাভাসকর ট্রফি শুরুর আগে ভারতের সহ অধিনায়ক কেএল রাহুলের মুখে তিন স্পিনার নিয়ে খেলার পরিকল্পনার...

    বাড়ির দেওয়ালে ছবি সাজানোর আগে বাস্তুর নিয়ম না জানলে বাড়তে পারে সমস্যা!

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো :- লোকেরা তাদের ঘর সাজানোর জন্য পারিবারিক ছবি রাখে। আসলে, বাড়ির দেয়ালে সজ্জিত ফটোগুলি পারস্পরিক ভালবাসাকে প্রতিফলিত করে।...

    শান্তিতে ঘুমাতে চাইলে এই জিনিসগুলো বিছানার অন্য পাশে রাখবেন না!

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো :- আমাদের জীবনে বাস্তুশাস্ত্রের অনেক গুরুত্ব রয়েছে। বাস্তুতে এমন অনেক নিয়ম বলা হয়েছে যা আমাদের জীবনের সমস্যাগুলি কাটিয়ে...