21 C
Kolkata
Tuesday, November 29, 2022
More

    ‘অগ্নিপুরুষ বা ডানপন্থী নই, আমি মধ্য-বাম চিন্তার মানুষ’: নতুন বইয়ের জন্যে সাক্ষাত্‍কারে জানালেন বরুণ গান্ধী

    দ্য ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো: নিজেকে ‘মধ্য-বাম চিন্তাধারার মানুষ’ হিসেবে বর্ণনা করে বিজেপি সাংসদ বরুণ গান্ধী একটি নতুন বইয়ে বলেছেন যে তিনি স্বভাবতই ডানপন্থী ব্যক্তি নন এবং তাঁর লেখাই তাঁর ‘ধারাবাহিকভাবে প্রগতিশীল উদারনৈতিক রেকর্ডের’ প্রমাণ।

    সম্প্রতি চালু হওয়া “ভারত আগামীকাল: রাজনৈতিক নেতাদের পরবর্তী প্রজন্মের সাথে কথোপকথন”, বরুণ গান্ধী ব্রিটেনের জেরেমি করবিন এবং যুক্তরাষ্ট্রের বার্নি স্যান্ডার্সকে অভিহিত করেছেন, উভয়ই বাম অর্থনৈতিক ও সামাজিক নীতি, তার রাজনৈতিক অনুপ্রেরণার জন্য পরিচিত। বইটি দেশের ২০ জন বিশিষ্ট পরবর্তী প্রজন্মের রাজনীতিবিদের সাক্ষাৎকারের মাধ্যমে পাঠকদের সমসাময়িক ভারতীয় রাজনীতির একটি ছবি তুলে ধরেছে।

    লেখক প্রদীপ ছিব্বার এবং হর্ষ শাহকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বরুণ গান্ধী বলেন- “আমার ধারণা, যদি কেউ মতাদর্শ বা নীতির দিক থেকে এটাকে দেখতে চায়, তাহলে আমি একজন মধ্য-বাম চিন্তাবিদ। আমি স্বভাবতই ডানপন্থী নই। আপনি যদি আমার সব লেখা পড়ে থাকেন, গত ১০ বছর ধরে আমার একটা ধারাবাহিক প্রগতিশীল উদারনৈতিক রেকর্ড আছে। একজন ব্যক্তি হিসেবে, আমি এই কণ্ঠে পরিণত হয়েছি যা আমার ভেতরে আছে।”

    বরুণ গান্ধী ভাষণ দিচ্ছেন। ছবি- গেটী ইমেজেস

    গান্ধী-নেহরু বংশোদ্ভূত প্রয়াত সঞ্জয় গান্ধী এবং বিজেপি নেতা মানেকা গান্ধীর পুত্র যিনি ২০০৪ সালে বিজেপিতে যোগ দেন। তিনি ২০০৯ সালে উত্তর প্রদেশের পিলিভিট থেকে তার প্রথম নির্বাচনে জয়লাভ করেন, যে আসনে তিনি এই মুহূর্তে প্রতিনিধিত্ব করছেন, প্রায় তিন লক্ষ ভোটের ব্যবধানে তাঁকে জয়যুক্ত করে।

    এছাড়াও পিলিভিট এর এই সাংসদ দেশের অর্থনৈতিক বৈষম্য, পরিবেশ ন্যায়বিচার, অনগ্রসর সম্প্রদায়ের মত বিষয়কেউ তাঁর বক্তব্যে তুলে ধরেছেন।

    তিনি বলেন -“… আমি সবসময় এমন অবস্থান গ্রহণ করেছি যা প্রগতিশীল পরিবর্তনের জন্য কিছু আকাঙ্ক্ষার লক্ষণ। বিভিন্ন শ্রোতাদের কাছ থেকে আমি যে ধরনের সমর্থন এবং ভালোবাসা পাই সেখানে আমি ডানপন্থীদের কাছ থেকে যা পাই তার চেয়ে প্রায় ১০ গুণ বেশি সমর্থন পাই বামপন্থীদের কাছ থেকে। আসলে, আমি অনেকবার ডানপন্থীদের দ্বারা ধাক্কা খেয়ে ছিটকে পড়েছি, কিন্তু আমি কখনো উদারপন্থীদের দ্বারা ধাক্কা খেয়ে ছিটকে যাই না,” ।

    বরুণ গান্ধী যোগ করেন যে কমিউনিস্টরা সবসময় তার সাথে রসিকতা করে এবং বলে যে তিনি “বিজেপির একজন কমিউনিস্ট”।

    ৪০ বছর বয়স্ক এই রাজনীতিবিদ “ফায়ারব্র্যান্ড” বা কঠোরতার শর্ত থেকে নিজেকে বিচ্ছিন্ন করে রাখেন। তাঁর প্রতি মানুষের এই ধারণা ২০০৯ সালে ঘৃণামূলক বক্তৃতা বিতর্কের পর তৈরি হয়েছিল যদিও কোর্ট তাঁকে বেকসুর খালাস করে দেয়।

    ২০০৯ সালে পিলিভিট থেকে বিজেপি প্রার্থী হিসেবে প্রচারণা চালানোর সময় তিনি তার কথিত ঘৃণামূলক বক্তৃতা নিয়ে বিতর্ক এবং ক্ষোভের সৃষ্টি করেন। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বিরুদ্ধে শত্রুতা এবং কুসংস্কারমূলক কাজের জন্য তার বিরুদ্ধে আইপিসি এবং পিপলস রিপ্রেজেন্টেশন অ্যাক্টের বিভিন্ন ধারায় মামলা দায়ের করা হয়। তার বিরুদ্ধে কোন উল্লেখযোগ্য প্রমাণের অভাবে ২০১৩ সালে তাকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়।

    বরুণ গান্ধী, যিনি একটি সিন্ডিকেট কলাম লিখেছেন এবং কবিতার দুটি খণ্ড সহ বেশ কয়েকটি বই লিখেছেন, তিনি বলেছেন যে এই কুখ্যাত ঘটনার পর থেকে অনেক দিন হয়ে গেছে এবং তারপর থেকে তিনি শত শত কাজ করেছেন। তিনি সাক্ষাৎকারে আরও উল্লেখ করেছেন যে তিনি আন্না হাজারের ধর্নায় বসে লোকপাল বিলকে সমর্থনও করেছেন।

    তিনি আরও বলেন যে- “আমি মনে করি না, সত্যি বলতে, কেউ আর মনে করে যে আমি একজন ফায়ারব্র্যান্ড বা কঠোর ব্যক্তি। আপনি যদি কোন পাবলিক প্ল্যাটফর্মের দিকে তাকান, আমার মনে হয় না কেউ এটা উল্লেখ করবে। বিষয়টি হচ্ছে এটা খুবই অদ্ভুত ব্যাপার, তথাকথিত বক্তৃতা, কারণ যখন আমি আমার মামলা লড়েছিলাম এবং জিতেছিলাম, তারা আমার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করেছিল।”

    কিন্তু প্রগতিশীল উদারনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গি সম্পন্ন কাউকে কি আকর্ষণ করে, বিজেপির কেন্দ্রীয় বামপন্থী হওয়া, কেন তিনি এর সাথে আটকে আছেন এবং কেন তিনি এত গুলো বিষয়ে তার মূল্যবোধ এবং দৃষ্টিভঙ্গির সাথে সামঞ্জস্য রেখে একটি দলে যাচ্ছেন না এ বিষয়ে প্রশ্নের উত্তরে তিনি জানান যে তিনি ১৫ বছর ধরে বিজেপিতে আছেন।

    তিনি ব্যাখ্যা করে বলেন যে -“আমি এর মধ্যে সম্পর্ক গড়ে তুলেছি, আমার এখানে বন্ধু আছে। আমি মনে করি যে মধ্য থেকে দীর্ঘমেয়াদী, বিজেপির সকল কর্মীরা অত্যন্ত প্রতিশ্রুতিবদ্ধ, কঠোর পরিশ্রমী, মধ্যবিত্ত, বিনয়ী, মাটির মানুষ যারা এই দেশের জন্য ভাল বোঝে। আমি দলীয় রাজনীতির বিশাল ভোটার নই, সত্যি বলতে কি, তাই আমি এটা নিয়ে একেবারেই ভাবি না।”

    পিপলিভিটে জয়ের পর। ছবি -গেটি ইমেজেস

    বরুণ গান্ধী বিজেপিতে যা পছন্দ করেন তা নিয়ে কথা বলেছেন- “ক্ষমতার বিকেন্দ্রীকরণ” এবং “বৃহত্তর রাজনৈতিক কাঠামোর মধ্যে বিভিন্ন বৌদ্ধিক শৃঙ্খলার সহনশীলতা”।

    তিনি দলের মধ্যে কঠোর ডানপন্থী কণ্ঠস্বর স্বীকার করেন, কিন্তু প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ীর উদাহরণ দেন, যিনি তাঁর জীবনের একটা বড় অংশ “গান্ধীবাদী সমাজতন্ত্র” নিয়ে কথা বলেন।

    বরুণ বলেন-“যখন আমি বিজেপিতে যোগ দান করি, কয়েক বছর পর আমি উপলব্ধি করলাম যে ক্ষমতার বিকেন্দ্রীকরণ হয়েছে। আমি মনে করি যে কোন আকারে কেন্দ্রীভূত ক্ষমতা কখনোই বড় কিছু নয়। তাই আমি অনুভব করলাম এখানে এমন একটা পার্টি আছে যেখানে আপনি একজন নেতার সাথে পড়ে গেলেও আপনি বেঁচে থাকতে পারেন এবং সফল হতে পারেন কারণ আপনার মধ্যে কল্যাণ এবং প্রতিভা এবং মূল্য দেখার জন্য আরও চারজন লোক থাকবে। এটা একটা জিনিস যা আমাকে একজন যুবক হিসেবে উৎসাহিত করেছে।”

    বরুণ গান্ধীর সিন্ডিকেট কলাম ১৭ টি সংবাদপত্রের মাধ্যমে ২০০ মিলিয়ন সাবস্ক্রাইবার ভিত্তিতে পৌঁছেছে যা বিভিন্ন ভাষায় প্রকাশিত। ২০১৮ সালের শেষের দিকে তিনি গ্রামীণ দুর্দশার উপর একটি বই লেখেন, “গ্রামীণ ইশতেহার: তার গ্রামের মাধ্যমে ভারতের ভবিষ্যৎ উপলব্ধি করা”। তিনি একজন কবিও । তিনি কবিতার দুটি খণ্ড লিখেছেন: “আত্মার অপরতা” (২০০০) এবং “স্থিরতা: কবিতা” (২০১৫)।

    তার কলাম নিয়ে আলোচনা করতে গিয়ে তিনি বলেন, “এবং আমি শুধুমাত্র নীতি নিয়ে লিখি। আমি বিরোধী উপায়ে রাজনীতি নিয়ে লিখি না। তাদের অনেকেই সমাধানমুখী এবং বাক্যরীতি বিতর্কিত হওয়ার জন্য নয়, এটা যুক্তরাষ্ট্র বনাম তাদের, আমি বনাম আপনি, কারণ নীতির পরিভাষায় আমি এবং আপনি নেই, শুধুমাত্র আমরা ই আছি।”

    Related Posts

    Comments

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    সেরা পছন্দ

    চাঁদে পাকাপাকি ভাবে থাকবে মানুষ !

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : চাঁদের মাটিতে শেষবার মানুষ পা রেখেছিল গত অর্ধ শতাব্দী আগে। এই বার সেখানে ঘর-বাড়ি...

    নির্দিষ্ট কিছু পুরনো কয়েন সরিয়ে ফেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে RBI !

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : ১ টাকা এবং ৫০ পয়সা মূল্যের নির্দিষ্ট কিছু পুরনো কয়েন সরিয়ে ফেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে...

    স্বামী বিবেকানন্দর পুনর্জন্ম মোদী , বেফাঁস মন্তব্য রাহুল সিনহার

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : বেফাঁস বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা। স্বামী বিবেকানন্দ পুনর্জন্ম নিয়ে ফিরে এসেছেন নরেন্দ্র মোদি রূপে,...

    বিশ্বকাপে আফ্রিকান দাদাগিরি ! বেলজিয়ামকে ঘায়েল করল মরক্কো

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : মরক্কো ২ আবদেলহামিদ সাবিরি (৭৩’), জাকারিয়া আবৌখাল (৯০+২’)  বেলজিয়াম ০

    ইন্ডিয়ান সুপার লিগে বিরাট জয় পেল ইস্টবেঙ্গল

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : ধারাবাহিকতার অভাবে ভুগছিল ইস্টবেঙ্গল। ইন্ডিয়ান সুপার লিগে অ্যাওয়ে ম্যাচে জামশেদপুর এফসির বিরুদ্ধে নেমেছিল ইস্টবেঙ্গল।...