14 C
Kolkata
Tuesday, January 18, 2022
More

    মোদীর মন্ত্রিসভা থেকে ইস্তফা দিলেন অকালি দলের নেত্রী হরসিমরত কউর

    দ্য ক্যালকাটা মিরর: পাঞ্জাবের চাষী, কংগ্রেস আর আম আদমি পার্টির সমবেত চাপের মুখে অকালি দলের নেত্রী হরসিমরত কউর বাদল আজ মোদীর মন্ত্রিসভা থেকে ইস্তফা দিলেন। অকালি দলের সভাপতি সুখবীর সিংহ বাদলের স্ত্রী হরসিমরত কেন্দ্রের খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ মন্ত্রীর পদে ছিলেন।

    উল্লেখ্য, পাঞ্জাবের চাষিরা আগেই হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন যে সাংসদরা কৃষি ক্ষেত্রে সংস্কারের আইনকে সমর্থন জানিয়ে রাজ্যে ফিরলে তাঁদের আর গ্রামে ঢুকতে দেওয়া হবে না। এছাড়াও কংগ্রেস, আম আদমি পার্টির নেতারা প্রশ্ন তুলেছিলেন যে কেন্দ্রীয় সরকারের কৃষি সংস্কারের বিরোধিতা কেন করছেন না অকালি দলের সদস্যরা।

    আজ মন্ত্রিসভা থেকে ইস্তফা দেওয়ার পর হরমিত এক বিবৃতিতে বলেন, পাঞ্জাবের চাষিভাইদের বোন হিসেবে পাশে থাকতে পেরে তিনি গর্বিত। প্রসঙ্গত, এনডিএ-তে বিজেপির সবথেকে পুরনো শরিক অকালি দল। তবে আজকের ঘটনা এই কারণে তাত্পর্যপূর্ণ যে মোদী সরকারের জমানায় এই প্রথম কোনও শরিক দলের মন্ত্রী সরাসরি সরকারি নীতির বিরোধিতা করে পদত্যাগ করলেন। যদিও এর আগে শিবসেনার মন্ত্রী মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করেছেন। কিন্তু সেই ঘটনা ঘটেছিল মহারাষ্ট্রে বিজেপির সঙ্গে উদ্ধব ঠাকরের জোট ভেঙে যাওয়ার পরে।

    উল্লেখ্য, অকালি দলের লোকসভার সাংসদ হিসেবে সুখবীর, হরসিমরত এই দু’জনই ছিলেন। উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার কৃষি ক্ষেত্রে সংস্কারের দু’টি বিল নিয়ে বিতর্কের সময় সুখবীরও এই বিলের বিরোধিতা করেন। সেই সঙ্গে হরসিমরত আর নিজের পদে থাকবেন না বলে ঘোষণা করে দেন। তবে পদত্যাগ করলেও বাইরে থেকে সরকারকে সমর্থন করবেন হরসিমরত ও সুখবীর।

    মূল ঘটনা এই যে কংগ্রেস-সহ বিরোধী নেতৃত্বরা অভিযোগ করেন, কেন্দ্রীয় সরকার জুন মাসে তিনটি কৃষক-বিরোধী অধ্যাদেশ জারি করেছিল। সেখানে কৃষকদের স্বার্থ দেখা হয় নি, বরং সেই বিলে শিল্পপতি, ব্যবসায়ীদের স্বার্থকেই মূল করে দেখা হয়েছে। এত দিন অকালি দল এই অধ্যাদেশের সমর্থন করছিল। কিন্তু এখন পরিস্থিতি সম্পুর্ণ পাল্টে গিয়েছে। এই বিলের ঘোষণা হতেই পাঞ্জাব-হরিয়ানা সহ বিভিন্ন রাজ্যের কৃষকরা রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেছেন। এমনকি পাঞ্জাবে কৃষক সংগঠনগুলি ২৫ সেপ্টেম্বর বন্‌ধের ডাক দিয়েছে।

    এই পরিবর্ত পরিস্থিতিতে অকালি দল শাঁখের করাতে পরেছিলেন। না পারছিলেন কৃষকদের পক্ষ নিতে না পারছিলেন সরকার ছাড়তে। কিন্তু গতকাল বিল ঘোষণা হতেই পাঞ্জাবের কৃষকের হুমকি দিতে শুরু করতেই এই দুই সংসদ নিজেদের অবস্থান নির্দিষ্ট করেন।

    এই ইস্তফা প্রসঙ্গে পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরেন্দ্র সিংহ বলেন, ‘‘চাষিদের স্বার্থ নিয়ে যদি এতই চিন্তা তাহলে অকালি দল এখনও এনডিএ-তে কেন?’’ যদিও সুখবীরের দাবি, এই অধ্যাদেশ পেশ করার আগে তাঁদের সঙ্গে কোনো রকম আলাপ আলোচনা করাই হয়নি। যদিও মন্ত্রিসভার বৈঠকে হরসিমরত চাষিদের আপত্তির কথা জানিয়েছিলেন। তবুও কেন্দ্রীয় সরকার এ বিষয়ে বিশেষ কোনো মন্তব্য করেনি।

    যদিও হরসিমরতের পদত্যাগে বিল পাশ হওয়া আটকানো যায় নি। NRC ও CAA এর মতই বিরোধীদের স্লোগান আর ওয়াকআউটের মধ্যেই লোকসভায় দু’টি বিল পাশ হয়ে যায়। যদিও রাজ্যসভায় পাশ করানোর আগে সিলেক্ট কমিটিতে পাঠানোর দাবিও সরকার সর্বদলীয় বৈঠকে খারিজ করে দিয়েছে। এ বিষয়ে গতকাল রাতে প্রধানমন্ত্রী নিজে টুইট করে বলেন, “এই ঐতিহাসিক বিল কৃষিক্ষেত্রে ফড়েদের রাজত্ব দূর করবে। চাষিরা ভাল দাম পাবেন। সরকারি খরিদ এবং ন্যূনতম সহায়ক মূল্যও (এমসিপি) বহাল থাকবে।”

    উল্লেখ্য, দেশজুড়ে চলা লকডাউনের মধ্যেই গত জুন মাসে কৃষি ক্ষেত্রে তিনটি অধ্যাদেশ জারির সিদ্ধান্ত নিয়েছিল কেন্দ্র। এই তিনটি অধ্যাদেশের মধ্যে প্র্থমটি হলো অত্যাবশ্যক পণ্য আইনে সংশোধন করে কৃষকদের চাল, ডাল, আলু, পেঁয়াজ, গম, ভোজ্যতেল, তৈলবীজ যত ইচ্ছে মজুত করার ছাড়পত্র দেওয়া হয়। দ্বিতীয়ত, কৃষিপণ্যের ব্যবসায়ী, রফতানিকারী ও খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ সংস্থাগুলি যাতে চুক্তির ভিত্তিতে চাষীদের জমিতে চাষ করিয়ে সরাসরি চাষিদের থেকে ফসল কিনতে পারে, তার ব্যবস্থা করা হয়। আর তৃতীয়ত , বেসরকারি সংস্থার সঙ্গে ব্যবসার ক্ষেত্রে ফসলের দাম নিশ্চিত করতে ও চাষিদের স্বার্থরক্ষা করা।

    তিনদিন ধরে চলা সংসদের বাদল অধিবেশনে এই অধ্যাদেশগুলিকেই আইনের চেহারা দিতে বিল এনেছে সরকার। যদিও অত্যাবশ্যক পণ্য আইন সংশোধনের বিল আগেই পাশ হয়ে গিয়েছে। ‘কৃষি পণ্য লেনদেন ও বাণিজ্য উন্নয়ন’ অধ্যাদেশ ও ‘কৃষিপণ্যের দাম নিশ্চিত করতে কৃষকদের সুরক্ষা ও ক্ষমতায়ন চুক্তি’ সংক্রান্ত বিল আজ লোকসভায় পাশ হল।

    এই বিল পাশের আগেই কংগ্রেসের সাংসদরা সংসদ চত্বরেই বিলের কপি আগুনে পোড়ান। বিরোধীদের অভিযোগ, অম্বানী, আদানিদের মতো সরকার প্রিয় শিল্পপতিদের সুবিধা দিতেই সরকার এই সব পদক্ষেপ করেছে। ফসলের ন্যূনতম সহায়ক মূল্য বা এমএসপি-র ব্যবস্থাও তুলে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এ বিষয়ে কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিংহ তোমার অবশ্য লোকসভায় দাবি করেন, এমএসপি চালু থাকবে। আর গতকাল রাতেও মোদী জি’ও সে কথা উল্লেখ করেন।

    Related Posts

    Comments

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    সেরা পছন্দ

    করোনা রোধে একাধিক ঔষধে ছাড়পত্র দিয়েছে WHO , দেখুন বিস্তারিত তালিকা

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : নতুন রূপে হাজির হচ্ছে করোনা। আমরা করোনার দ্বিতীয় ঢেউ পেরিয়ে এসেছি। এবার বিপদের নাম...

    মধ্যপ্রাচ্যে আবারও যুদ্ধের ইঙ্গিত !

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : আবারও মধ্যপ্রাচ্যে যুদ্ধের দামামা। সংযুক্ত আরব আমিরশাহীর রাজধানী আবু ধাবিতে জোড়া হামলা চালাল ইরান...

    শিশুদের করোনা আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা কতটা ? দেখুন কি বলছে বিশেষজ্ঞরা

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : প্রাপ্তবয়স্কদের অধিকাংশের করোনা টিকা হলেও ভারতে শিশুদের পর্যন্ত করোনা টিকাদান হয়নি। ফলে তাদের মধ্যে...

    দেশে শীঘ্রই শুরু হচ্ছে ১২-১৪ বছর বয়সীদের টিকাকরণ !

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : দেশে শিশুদের টিকাদানের কর্মসূচি একধাপ এগোল। এবারে দেশে শুরু হতে চলেছে ১২ থেকে ১৪...

    দেশে নিম্নমুখী দৈনিক করোনা সংক্রমণ , চিন্তা বাড়াচ্ছে সক্রিয় রোগী

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : সোমবার দেশে সামান্য কমল কোভিডের দৈনিক সংক্রমণ। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের এদিনের বুলেটিন অনুযায়ী দেশে...