21 C
Kolkata
Monday, January 24, 2022
More

    এবারে পুজোয় সবই ‘টাটকা’ মিষ্টি নইলে লাইসেন্স বাতিল, FSSAI

    দ্য ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো: পয়লা অক্টোবর ২০২০ থেকেই মিষ্টিতে ‘এক্সপায়ারি ডেট’ লেখা বাধ্যতামূলক করল কেন্দ্রীয় খাদ্য সুরক্ষা এবং খাদ্য লাইসেন্স প্রদান কারী সংস্থা বা FSSAI। গত ২৫ শে সেপ্টেম্বের এই মর্মে চিঠি দিয়ে ফুড সেফটি কমিশনার নির্দেশ দিয়েছেন যে, সারা দেশে ১’লা অক্টোবর থেকে সমস্ত মিষ্টির দোকানে বিক্রয়ের জন্যে রাখা মিষ্টিতে লিখতে হবে ‘এক্সপায়ারি ডেট’। এই নির্দেশ বহনকারী চিঠি ইতিমধ্যেই পৌঁছেছে রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির খাদ্য নিয়ামক কর্তৃপক্ষর কাছে।

    চিঠিতে স্পষ্ট করে উল্লেখ করা রয়েছে যে, মিষ্টি যদি প্যাকেটজাত (প্লাস্টিক বা টিনের ক্যান) করা হয়ে থাকে তাহলে সেই প্যাকেটের ওপর অবশ্যই লিখতে হবে এক্সপায়ারি ডেট। আর প্যাকেটজাত নয় বা খোলা মিষ্টির ক্ষেত্রে সেই ট্রে’র ওপর কার্ডে লিখে রাখতে হবে ‘বেস্ট বিফোর তারিখ’। অর্থাৎ ওই তারিখের পর মিষ্টিতে ফাঙ্গাস বা পচন ধরার সম্ভাবনা রয়েছে সেটা ক্রেতাকে জানিয়ে দেওয়া। তবে মিষ্টির উপাদানের ওপর নির্ভর করেই এই তারিখের উল্লেখ করবে নির্মাতা সংস্থা বা দোকানদার।

    উল্লেখ্য, FSSAI দেশীয় খাদ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করতে বেশ কিছুদিন ধরেই মিষ্টিতে ‘এক্সপায়ারি ডেট’ লেখার পদ্ধতি প্রণয়নের চেষ্টা করছিল। কিন্তু তাদের এই কাজে দায় হয়ে দাঁড়ায় অসংগঠিত ক্ষেত্র। আসলে আমাদের দেশে মিষ্টি শিল্প অসংগঠিত ক্ষেত্রের অন্তর্গত। এর ফলে সেই বিধি প্রয়োগে নানা পদ্ধতিগত জটিলতা তৈরি হয়েছিল। FSSI এর সমীক্ষায় ছোট মিষ্টান্ন প্রস্তুতকারীরা জানিয়েছিলেন, এক্সপায়ারি ডেট লেখার জন্য প্রতিটি মিষ্টি আলাদা করে প্যাকেটবন্দি করতে গেলে খরচ অনেক বেড়ে যাবে যাতে তাদের পরতায় পোষাবে না। সামনে পুজো ও উত্সবের দিন আসছে এই সময়ে মিষ্টির দাম বাড়লে প্রভূত সমস্যা দেখা দেবে।

    FSSAI এর নির্দেশিকা

    এবার FSSAI সেই সমস্যার সমাধান হিসাবে খোলা মিষ্টির ক্ষেত্রে ট্রে-র ওপর ‘বেস্ট বিফোর’ তারিখ উল্লেখের নির্দেশ দিয়েছে। এতে গ্রাহক অন্তত এটা জানতে পারবেন যে কতদিনের মধ্যে মিষ্টিটি খেয়ে ফেলতে হবে। কিন্তু FSSAI এও বলেছে যে মিষ্টি প্যাকেটবন্দি না হলে বা তাতে কোনও এক্সপায়েরি ডেটের উল্লেখ না থাকলে তা থেকে কোনও শারীরিক অসুস্থতা হলে আইনি সুবিধা ও ইনসুরেন্স পাওয়ার সম্ভাবনা কম। মূলত: এই সমস্যা দূর করার জন্যেই এই পদক্ষেপ।

    FSSAI এও বলেছে যে এই নির্দেশ অমান্য করলে দোকানের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নিতে পারবে পৌরসভা বা রাজ্য খাদ্যদপ্তর।

    Related Posts

    Comments

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    সেরা পছন্দ

    দেশে নিম্নমুখী করোনা সংক্রমন , উদ্বেগ বাড়াচ্ছে গোষ্ঠী সংক্রমন

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : চোখ রাঙাচ্ছে করোনার নয়া স্ট্রেন ওমিক্রন। তারই মধ্যে সামান্য স্বস্তির খবর শোনাল কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক।...

    আজও বৃষ্টির ভ্রুকুটি ! সপ্তাহ শেষে কামব্যাক করবে শীত

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : রাজ্যে বৃষ্টির ভ্রুকুটি। রবিবার শহর কলকাতার আকাশ ছিল মেঘলা। বৃষ্টিপাত হয়েছিল একাধিক জেলাতে। প্রশ্ন...

    নয়াদিল্লির ইন্ডিয়া গেটে নেতাজির হলোগ্রাম স্ট্যাচুর উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : অবশেষ প্রতীক্ষার অবসান। ভারতের রাজধানী দিল্লির ইন্ডিয়া গেটে নেতাজী সুভাষচন্দ্র বসুর উজ্জ্বল উপস্থিতি। ১২৫...

    করোনার থাবা ভারতীয় মহিলা ফুটবল দলে , বাতিল AFC এশিয়ান কাপের ম্যাচ

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : করোনার থাবা এবার মহিলাদের AFC এশিয়ান কাপে। ভারতীয় ফুটবল শিবিরে করোনার কবলে একাধিক ফুটবলার।...

    স্বস্তি দিয়ে রাজ্যে নিম্নমুখী করোনা সংক্রমন , বাড়ছে সুস্থতার হার

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : ধীরে ধীরে সুস্থ হচ্ছে বাংলা। কমছে দৈনিক সংক্রমণ। রাজ্যে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন...