26 C
Kolkata
Thursday, May 26, 2022
More

    এবার নেট পাড়াতেও নীতি পুলিশের বাড়াবাড়ি, তাদের খপ্পরে ঋষি এবং লক্ষ্মী

    দ্য ক্যালকাটা মিরর: বাস্তবে আমরা কলকাতার মেট্রোতেও দেখেছিলাম নীতি পুলিশের বাড়াবাড়ি এবার মধুচন্দ্রিমার পর ফোটোশুট করে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্টের পর নীতি পুলিশদের মুখে পড়তে হল কেরালার ঋষি কার্তিকেয়ন এবং লক্ষ্মীকে। করোনাভাইরাস পরিস্থিতির মধ্যেই সাতপাঁকে বাঁধা পড়েছিলেন কিন্তু তেমন ধুমধাম করে বিয়ে হয়নি। তাই বিয়ের আগে ফোটোশুটও হয়নি। কিন্তু হানিমুনে গিয়ে সে ইচ্ছা পূরণ করলেন তারা আর সেটা প্রকাশ্যে আসতেই ‘অপমানের’ শিকার হলেন দম্পতি।

    একটি দক্ষিণী পত্রিকার প্রতিবেদন অনুযায়ী, গত ১৬’ই সেপ্টেম্বর ছোটো করে বিয়ে সেরেছিলেন ঋষি ও লক্ষ্মী। তারপর গত সপ্তাহে ইদুক্কি জেলার চা-বাগান ঘেরা ভ্যাগামনে মধুচন্দ্রিমায় গিয়েছিলেন। সেখানে অসামান্য প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের মধ্যে পোস্ট-ওয়েডিং ফোটোশুট করেন। ছবি তোলেন পারিবারিক বন্ধু অখিল কার্তিকেয়ন। যিনি কেরালার ত্রিশূরে ‘ওয়েডিং স্টোরিস’ নামে বিবাহ ফোটোগ্রাফির একটি সংস্থা চালান। ছবিতে দেখতে পাওয়া যায় নয়া দম্পতি নিজেদের গায়ে সাদা চাদর জড়িয়ে বেশ কিছু সদ্য বিবাহিত দাম্পত্য দুষ্টুমি ঢঙ্গে ছবি তুলেছিলেন। ঘটনাটি এখানেই শেষ নয়।

    হানিমুন থেকে ফিরে আর পাঁচজনের মতো ঋষি এবং লক্ষ্মীও সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই ছবি পোস্ট করেন। যেহেতু নিজেদের বিয়ের ছবি পোস্ট করতে পারেন নি তাই হানিমুনের ছবি পোস্ট করার সময় অত্যন্ত উত্তেজিত ছিলেন। কিন্তু তাঁদের সেই উন্মাদনা বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। গত বৃহস্পতিবার ফেসবুকে ছবি পোস্টের পর থেকেই গালিগালাজ করা হয়। জঘন্য রুচির কমেন্ট করা হতে থাকে। ইনস্টাগ্রামেও একই অবস্থা হয়। তাতে রীতিমতো অবাক হন নয়া দম্পতি।

    ঋষি জানিয়েছেন, ‘পুরো শুটের সময় আমাদের গায়ে ভালোমতোই কাপড় ঢাকা ছিল। আমরা যেহেতু ভ্যাগামনের মতো জায়গায় বাইরে শুট করছিলাম, তাই কোনও পোশাক পরে না থাকা অসম্ভব। ফোটোগ্রাফার যে নৈসর্গিক ছবি তুলেছেন, সেটা সম্পূর্ণ তাঁর ক্যামেরা সামলানোর কৃতিত্ব ও তাঁর দক্ষতা। কিন্তু ছবির ধরণ নিয়ে আমার ও আমার স্ত্রী’কে নিয়ে অধিকাংশ ফেসবুক ব্যবহারকারী নীতি পুলিশের ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়।’ তিনি জানান, অধিকাংশ প্রি-ওয়েডিং ফোটোশুটই গতে বাঁধা হয়। তাই তাঁরা অন্যরকম পরিকল্পনা করেছিলেন। তাতে আপত্তি ছিল না তাঁদের পরিবারেরও।

    অনেকে সেই ছবি পছন্দ না করলেও ভদ্র ভাষায় সমালোচনা করেছেন। কিন্তু নীতি পুলিশদের মতো নিম্নমানের ভাষা প্রয়োগ করেননি। তবে এর পাশাপাশি অনেকে নয়া দম্পত্তির পাশেও দাঁড়িয়েছেন। সেইসব ট্রোল ও হেনস্থা সত্ত্বেও ঋষি ও লক্ষ্মী স্পষ্ট জানিয়েছেন, তাঁরা ফেসবুক থেকে সেই ছবিগুলি মুছে দেবেন না। ট্রোলের জবাব না দেওয়া বা আইনি পদক্ষেপ না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘এটা এক-দু’দিনের মিটে যাবে এবং এই ট্রোলগুলির জবাব দিয়ে আমি নিজের এনার্জি নষ্ট করতে চাই না। তাই আমি পুলিশে অভিযোগ দায়ের করব না।’

    Related Posts

    Comments

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    সেরা পছন্দ

    ফের বেসরকারিকরণের পথে রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা ! তালিকায় আর কোন কোন সংস্থা ?

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : ফের বেসরকারিকরণের পথে একটি রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা। এবার হিন্দুস্তান জিঙ্ক। দেশের বৃহত্তম ইন্টিগ্রেটেড জিঙ্ক প্রস্তুতকারী...

    ‘মাঙ্কিপক্স’ মোকাবিলায় কতটা প্রস্তুত ভারত ? কি বলছে বিশেষজ্ঞরা

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : করোনা মহামারির বিপদ কাটতে না কাটতেই শিয়রে অন্য বিপদ, ‘মাঙ্কিপক্স’ সংক্রমণ। WHO-র সাম্প্রতিকতম তথ্য...

    ত্রাতা সেই মুখ্যমন্ত্রী , নতুন ইনভেস্টর পেল ইস্টবেঙ্গল ক্লাব

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : ত্রাতা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রীর হস্তক্ষেপে ইনভেস্টর সমস্যা মিটে গেল ইস্টবেঙ্গলে। লাল-হলুদে ইনভেস্টর হিসাবে...

    করোনা মোকাবিলায় মোদীর প্রশংসায় পঞ্চমুখ বাইডেন , দুষলেন চীনকে

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : কয়েকদিন আগে WHO জানিয়েছিল, কোভিডে মৃতের সংখ্যা চেপে গিয়েছে ভারত। কিন্তু মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো...

    আগামীকাল ভারত বনধের ডাক ! একাধিক দাবি সংখ্যালঘু সম্প্রদায় কর্মচারী ফেডারেশনের

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : আবারও ২৫ মে ভারত বনধের ডাক। ভোটে ইভিএম-র ব্যবহার বন্ধ সহ একাধিক বিষয়ে ভারত...