18 C
Kolkata
Friday, December 9, 2022
More

    এই মূহুর্তে বেইরুটে বিস্ফোরণের ধ্বংসস্তূপে ‘জীবনের কোনও চিহ্ন নেই’

    এই মূহুর্তে বেইরুটে বিস্ফোরণের ধ্বংসস্তূপে ‘জীবনের কোনও চিহ্ন নেই’

    দ্য ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : গত শনিবার তৃতীয় দিনের জন্য জীবনের অনুসন্ধান এখনও চলছে বেইরুটের বিস্ফোরণ স্থলে । বেইরুটের একটি ভেঙেপরা বিল্ডিং এর জঞ্জাল ভেদ করে উদ্ধারকর্মীরা জানিয়েছেন নতুন করে সেখানে করোকে জীবিত খুঁজে পাওয়ার কোনও সম্ভাবনাই নেই আর। উল্লেখ্য, লেবাননের রাজধানী বেইরুটে গত ৪’ই আগস্ট ভয়াবহ বিস্ফোরণে একটি ঐতিহাসিক বন্দর সম্পুর্ণ তছনছ হয়ে গিয়েছে। সেই ধ্বংসস্তুপেই এখন কারো বেঁচে থাকার সম্ভবনা নেই জানিয়েছে উদ্ধারকারীরা।

    উল্লেখ্য, চিলির একটি বিশেষজ্ঞ দল সহ প্রায় ৫০ জন উদ্ধারকর্মী ও স্বেচ্ছাসেবকরা বৃহস্পতিবার সেন্সর লাগিয়ে শ্বাস ও উত্তাপের লক্ষণ শণাক্ত করার কাজ করেছেন। তিন দিন ধরে কাজ করার পরেও কাউকে শণাক্ত করা যায় নি। শনিবার সন্ধ্যায় স্বেচ্ছাসেবীর উদ্ধারকারী দল প্রধান ফ্রান্সিসকো লারমান্ডা এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, “প্রযুক্তিগতভাবে বললে সেখানে জীবনের কোনও লক্ষণ নেই।”

    বেইরুটে গত বৃহস্পতিবার থেকে টানা তিনদিন জীবনের লক্ষণ অনুসন্ধান চলেছে। লারমান্ডা বলেছেন যে ইতিমধ্যে ভবনের ভিতরে থাকা তাদের উদ্ধারকারীদের শ্বাস-প্রশ্বাসের সংবেদনশীল সরঞ্জাম পেয়েছেন। তিনি বলেন, এখন আমাদের প্রচেষ্টা ধ্বংসস্তুপ পরিষ্কা করা এবং অবশেষ অনুসন্ধানের দিকে মনোনিবেশ করা।

    লাড়মান্ডা বলেছেন, “আমরা এক শতাংশ আশা এখনও ছাড়িনি”। তিনি একটি লাশ খুঁজে পাওয়ার বিষয়েও বলেছেন। তিনি আরও বলেছেন, “কাজ শেষ না হওয়া পর্যন্ত আমরা কখনই থামবো না।”

    প্রসঙ্গত ৪’ই আগষ্টে লেবাননের বেইরুটে ভয়াবহ বিস্ফোরণে মৃত্যু হয়েছিল ১৯০ জনের। আহত হয়েছিল প্রায় ৬০০০ এরও বেশি মানুষ। ঘটনাস্থলের আশপাশ পুরো ধ্বংস হয়ে গিয়েছিল। শহরটিতে বিস্ফোরণ ছড়িয়ে যাওয়ার পর একমাস কেটে গিয়েছে ইতিমধ্যে শহরের অর্থনৈতিক অবস্থা সম্পুর্ণ বিধ্বস্থ। অর্থনৈতিক সংকটে জর্জরিত শহরের কর্তৃপক্ষ শুক্রবার আনুষ্ঠানিকভাবে একটি বৈঠক করেছে।

    যেখানে অনুসন্ধান অব্যাহত রয়েছে সেটি জেমাইজে এবং মার মাইকেলের আবাসিক জেলাগুলির মধ্যে বিস্ফোরণে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ অঞ্চলগুলির মধ্যে একটি। বিস্ফোরণের শকওয়েভ এ অনেকগুলি পুরানো বাড়িও ভেঙে পড়েছিল। উদ্ধারকর্মীরা বলেছিলেন, সবচেয়ে খারাপভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হওয়া বিল্ডিংটি সম্পূর্ণ ধসে পড়ার ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে।

    লেবাননের সিভিল ডিফেন্সের প্রধান জর্জ আবু মউসা বলেছিলেন, “ভবনটি আসলেই ভেঙে যাচ্ছে, এটি ভয়ঙ্কর এবং অনুসন্ধান দলের জন্য বেশ বিপজ্জনক।” শ্রমিকরা খননের জন্য বেলচা এবং তাদের হাত ব্যবহার করছে। অন্যদিকে যান্ত্রিক খনকগুলি এবং একটি ক্রেন ভারী ধ্বংসাবশেষগুলো তুলছিল। বিধ্বস্ত বিল্ডিংয়ের থ্রি ডি চিত্র তৈরি করতে স্ক্যানার ব্যবহৃত হচ্ছে।

    Related Posts

    Comments

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    সেরা পছন্দ

    ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড় তৈরির আশঙ্কা বঙ্গোপসাগরে , কতটা প্রভাব বঙ্গে ?

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : ভয়াবহ ঘূর্ণিঝড়ের আশঙ্কা বঙ্গোপসাগরে। ঘূর্ণিঝড় মান্দাস-র পূর্বাভাস দিচ্ছেন আবহাওয়াবিদরা। তাহলে কি ফের ঝড়বৃষ্টির আশঙ্কা...

    হিমাচলে এগিয়ে পদ্ম , লড়াই দিচ্ছে কংগ্রেস ! বলছে সমীক্ষা

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : হিমাচল প্রদেশ বিধানসভা নির্বাচন গত ১২ নভেম্বর সম্পন্ন হয়েছে। এরপর ৮ ডিসেম্বর তার ফলাফল...

    গুজরাটে মোদী সুনামি ! উত্থান আপের , বলছে বুথ ফেরত সমীক্ষা

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : সপ্তমবারও বিজেপি সরকার। মোদী-শাহের রাজ্যে এবারও ক্লিন স্যুইপ পেতে চলেছে BJP। বুথফেরত সমীক্ষায় তেমনই...

    অঘটনের বিশ্বকাপে এশিয়ান ঝড় , রোনাল্ডোর দেশকে হারাল দক্ষিণ কোরিয়া

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : পর্তুগাল: ১ (রিকার্ড হোর্তা) দক্ষিণ কোরিয়া: ২ (কিম ইয়ং গওন, হং...

    নজিরবিহীন ঘটনা , অশোকনগরে বৃদ্ধ দম্পতির ঘরে জন্ম নিল ফুটফুটে সন্তান

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : স্বামীর বয়স প্রায় ৭০ বছর আর তার স্ত্রীর বয়সও পঞ্চাশের বেশি। বৃদ্ধ এই দম্পতির...