30 C
Kolkata
Thursday, February 9, 2023
More

    অভিভাবকদের জন্যে স্বস্তি, করোনা আবহে স্কুল ফি-তে বড় ছাড়ের ঘোষণা হাইকোর্টের

    দ্য ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো: করোনা পরিস্থিতিতে অর্থনৈতিক অবস্থা তলানিতে, এই অবস্থাতে বেসরকারি স্কুলের ফি দিতে গিয়ে রাতের ঘুম উড়েছে অভিভাবকদের। বর্ধিত ও অন্যায্য ফি’র প্রতিবাদে বিভিন্ন স্কুলের সামনে জমায়েত করে অভিভাবকরা বিক্ষোভও দেখছেন বহু দিন ধরে। অবশেষে তাঁদের জন্য স্বস্তির খবর দিল কলকাতা হাইকোর্ট। করোনা আবহে স্কুল ফি-তে বড় ছাড়ের ঘোষণা করল হাইকোর্ট।

    আজ মঙ্গলবার বিচারপতি সঞ্জয় বন্দ্যোপাধ্যায় ও বিচারপতি মৌসুমী ভট্টাচার্যের ডিভিশন বেঞ্চ একটি জনস্বার্থ মামলার প্রেক্ষিতে রাজ্যের বেসরকারি স্কুলের ক্ষেত্রে টিউশন ফি-তে ২০ শতাংশ ছাড় দেওয়ার নির্দেশ দিলেন। এই করোনা মহামারী পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

    এর পাশাপাশি এদিন কলকাতা হাইকোর্ট স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে যে ১’লা এপ্রিল ২০২০ থেকে যে শিক্ষাবর্ষ শুরু হয়েছে সেই শিক্ষাবর্ষে কোনও রকম নন অ্যাকাডেমিক ফি নেওয়া যাবে না বলে। এদিন আরও একটি বড় নির্দেশ দিয়েছে রাজ্যের শীর্ষ আদালত। বলা হয়েছে, এই করোনা পরিস্থিতি শেষ না হওয়া পর্যন্ত কোনও স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকা, কর্মচারীদের কোনোরকমভাবে বেতন বৃদ্ধি করা যাবে না।

    এই নির্দেশ কলকাতা ও তত্‍সংলগ্ন ১১২টি বেসরকারি স্কুল ও রাজ্যের অন্যান্য বেসরকারি স্কুল যারা সরকারি সাহায্য পায় না তাদের ক্ষেত্রে কার্যকর হবে। যার মধ্যে কলকাতার প্রায় সমস্ত নামীদামি বেসরকারি স্কুল রয়েছে। এই ফি মুকুবের জন্য অভিভাবকদের সরাসরি স্কুলেই আবেদন জানাতে হবে। যদি স্কুল সেই অবেদন ফিরিয়ে দেয় তবে বিশেষজ্ঞ কমিটিতে আবেদন জানাতে হবে।

    তবে অভিভাবক সংগঠনের নেতা সুপ্রিয় ভট্টাচার্য আদালতের এই নির্দেশে খুশি নন। তিনি জানান, ‘‌আদালতের এই রায়ে অভিভাবকরা সুবিচার পেলেন না। কারণ, আমরা আদালতে জানিয়েছিলাম, যে সব পরিষেবা আমরা স্কুলের তরফে পাচ্ছি না তার জন্য কোনওরকম ফি আমরা দিতে চাই না। আমরা স্কুলের বাস ব্যবহার করছি না অথচ তার খরচ আমাদের কেন দিতে হবে?‌ স্কুল বন্ধ অথচ বিদ্যুতের খরচ, ল্যাবরেটরির খরচ দিতে বলা হচ্ছে। আমরা এখনও আদালতের নির্দেশ হাতে পাইনি। যদি আমাদের দাবি ঠিকঠাকভাবে না মানা হয় তবে এর পরও আরও তীব্রতর আন্দোলন শুরু হবে।’‌

    উল্লেখ্য, কলকাতা হাইকোর্টে দায়ের করা জনস্বার্থ মামলার এই রায় মানতে বাধ্য প্রতিটি স্কুল। যদি এই নির্দেশ কোনও স্কুল না মানে তা হলে তাদের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার মামলা দায়ের হতে পারে। কোনও স্কুল যদি এই নির্দেশ একান্তই মানতে না চায় তবে সেই স্কুল কর্তৃপক্ষ হাইকোর্টকে চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রীম কোর্টে যেতে পারে।

    Related Posts

    Comments

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    সেরা পছন্দ

    নিখরচায় চক্ষু পরীক্ষা শিবির

    কলকাতা ক্রীড়া সাংবাদিক ক্লাবের অর্থাৎ সিএসজেসি-‌র প্রচেষ্টায় এবং নাগরিক স্বাস্থ্য সঙ্ঘের সহযোগীতায় মঙ্গলবার সিএসজেসিতে কম্পিউটারাইজড চক্ষু পরীক্ষা শিবির অনুষ্ঠিত হল। ক্রীড়া সাংবাদিকদের...

    সবুজ মেরুনের ঘাড়ের‌ ওপর নি:‌শ্বাস বেঙ্গালুরুর :‌ রাজকুমার মণ্ডল

    জামশেদপুর ম্যাচে জয়ে ফিরতে মরিয়া এটিকে মোহনবাগান। বেঙ্গালুরুর কাছে হের একধাপ নীচে এটিকে মোহনবাগান। ১৬ ম্যাচে ২৭ পয়েন্টে পাঁচ নম্বরে সবুজ মেরুন।...

    নাগপুর টেস্টে তিন স্পিনারে নামছে ভারত :‌ রাজকুমার মণ্ডল

    ভারত-অস্ট্রেলিয়া প্রথম টেস্ট। যুদ্ধকালীন প্রস্তুতিতে দুই দলই। বর্ডার-গাভাসকর ট্রফি শুরুর আগে ভারতের সহ অধিনায়ক কেএল রাহুলের মুখে তিন স্পিনার নিয়ে খেলার পরিকল্পনার...

    বাড়ির দেওয়ালে ছবি সাজানোর আগে বাস্তুর নিয়ম না জানলে বাড়তে পারে সমস্যা!

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো :- লোকেরা তাদের ঘর সাজানোর জন্য পারিবারিক ছবি রাখে। আসলে, বাড়ির দেয়ালে সজ্জিত ফটোগুলি পারস্পরিক ভালবাসাকে প্রতিফলিত করে।...

    শান্তিতে ঘুমাতে চাইলে এই জিনিসগুলো বিছানার অন্য পাশে রাখবেন না!

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো :- আমাদের জীবনে বাস্তুশাস্ত্রের অনেক গুরুত্ব রয়েছে। বাস্তুতে এমন অনেক নিয়ম বলা হয়েছে যা আমাদের জীবনের সমস্যাগুলি কাটিয়ে...