32 C
Kolkata
Sunday, September 25, 2022
More

    বঙ্গ বিজেপিতে দিলীপের বদলে সুকান্ত , নেপথ্যে আসল সমীকরণ কি ?

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো :

    লোকসভা ভোটে দিলীপের নেতৃত্বে রাজ্যে গেরুয়া ঝড়। এক ধাক্কায় ২ থেকে ১৮ বিজেপি। কিন্তু বিধানসভা ভোটে যতটা মেঘ ডাকলো ততটা বৃষ্টি হল না। ৭৭ টাতেই আটকে গেল বিজেপি। হারের কারণ কি ? ভুল স্ট্র্যাটেজি নাকি অন্য কিছু। তবে এটা একবাক্যে স্বীকার্য যে দিলীপ ঘোষের আমলেই বঙ্গে বিজেপির এতটা উত্থান। তবে সবাইকেই আসন ছাড়তে হয়। কারণ রাজনীতির পাশা কখন উল্টে যাবে কেউই জানে না ! তাই বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব ঠিক করলেন দিলীপের বদলি নবাগত সুকান্ত মজুমদার। কিন্তু তিনি কেন ?

    শিক্ষিত, মার্জিত, তরুণ। বিজেপির নয়া রাজ্য সভাপতি অধ্যাপক ড. সুকান্ত মজুমদারকে বর্ণনা করেছেন তাঁর পূর্বসূরি দিলীপ ঘোষ। গেরুয়া শিবির সূত্রে বলা হচ্ছে, ভোটে অভীষ্ট লক্ষ্যপূরণ না হওয়ায় দলের সংগঠন বদলাতেই হত। কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে, রাজ্য সভাপতি পদে আরও অনেক জনপ্রিয় মুখ থাকা সত্ত্বেও অপেক্ষাকৃত অনভিজ্ঞ, সুকান্ত মজুমদারকেই কেন বাছা হল ? বেশ কয়েকটি ব্যাখ্যা দিচ্ছে রাজনৈতিক মহল।

    শাসকদল তৃণমূলের মুখ্যমন্ত্রী থেকে শুরু করে শীর্ষ নেতাদের অধিকাংশই কলকাতা বা শহরতলির বাসিন্দা। বাম আমল থেকেই রাজ্যের রাজনীতি মূলত ছিল কলকাতা কেন্দ্রিক। রাজ্যের অন্যান্য জেলার বহু নেতা নিজেদের বঞ্চিত বলে মনে করেন। বিজেপি মূলত সেই সেন্টিমেন্টকে কাজে লাগিয়ে জেলা থেকে রাজ্য সভাপতি নিয়োগ করার পন্থা নিয়েছে। শুধু রাজ্য সভাপতি নন, বিধানসভার বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীও জেলার বাসিন্দা। তবে বিজেপির চমক হল তারা উত্তর ও দক্ষিণ ভারসাম্য রেখেছে।

    আরও পড়ুন : ক্ষীরগ্রাম খোলাখামে ইতিহাস ,অনন্ত ইতিহাসের গতিবিধি চলন্ত উইকিপিডিয়া। এমনই এক ছবি- গ্রাম ক্ষীরগ্রাম। সহজ বাংলার বহতা সোঁদা গন্ধ পুজোর কাশে পাল তুলে দেয় অবকাশে। লিখেছেন স্বরূপ চক্রবর্তী

    বাংলার রাজনীতিতে বিজেপির উত্থানের শুরুই হয়েছে উত্তরবঙ্গ দিয়ে। উত্তরবঙ্গের মানুষের দীর্ঘদিনের অভিযোগ, রাজধানী থেকে অনেক দূরে থাকায় উন্নয়নের ক্ষেত্রে তাঁদের বঞ্চিত করা হচ্ছে। সেটাকেই কাজে লাগাতে চেয়েছিল গেরুয়া শিবির। ফল মেলে ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনেও। উত্তরবঙ্গে অভাবনীয় ফল করে বিজেপি। কদিন আগে বঙ্গভঙ্গের তত্ত্ব খাঁড়া করা জন বারলাকেও কেন্দ্রীয় মন্ত্রিত্ব দিয়েছে গেরুয়া শিবিরের কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। উত্তরবঙ্গ থেকে রাজ্য সভাপতিও করে দেওয়া হল। উত্তরে সংগঠন আরও পোক্ত হবে বলে মনে করছে দল।

    সুকান্ত মজুমদারকে দলের সব গোষ্ঠীর কাছে গ্রহণযোগ্য বলে মনে করছে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। বঙ্গ বিজেপির অন্দরে লবিবাজি চলে আসছে সেই বিষ্ণুকান্ত শাস্ত্রীর আমল থেকেই। দিলীপ ঘোষকে কাজ করতে হয়েছে সেই লবিবাজি সামলেই। সুকান্ত মজুমদারের অ্যাডভান্টেজ হল, তাঁর নিজস্ব কোনও গোষ্ঠী নেই। দিলীপ, শুভেন্দু, তথাগত, সবার সঙ্গেই সামঞ্জস্য রেখে চলতে পারবেন তিনি। সুকান্তবাবু নিজে আরএসএস ঘনিষ্ঠ। সংঘ পরিবার থেকেও তাঁর নিযুক্তিতে সম্মতি দেওয়া হয়েছে।

    দিলীপ ঘোষ রাজ্য সভাপতি থাকাকালীন তাঁর একের পর এক আলটপকা মন্তব্য দলের কর্মীদের মনোবল বাড়ালেও তথাকথিত ‘এলিট ক্লাসে’র বাঙালিদের কাছে বিজেপিকে অচ্ছ্যুত করে তুলেছিল। সুকান্তর আমলে অন্তত তেমনটা হবে না বলেই মনে করছে বিজেপি। আর সুকান্তর নেতৃত্বে সংগঠন ঢেলে সাজানো যেতে পারে। শিক্ষিত মার্জিত এই ভদ্রলোক তৃণমূলকে কতটা চ্যালেঞ্জ দিতে পারেন সেটাও দেখার।

    লেখা ———- পল্লব চক্রবর্তী

    Related Posts

    Comments

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    সেরা পছন্দ

    পেলে ম্যাচের ৪৫ বছর বর্ষ পূর্তি প্রসূনের উদ্যোগে বিশেষ আড্ডা

    দ্য ক্যালকাটা মিরর : ফুটবল সম্রাট কিংবদন্তি পেলের বিরুদ্ধে খেলে, ৪৫ বছর আগে এক বৃষ্টিভেজা বিকেলে ইডেন উদ্যানে...

    শেষ বার লর্ডসে টস করলেন প্রাক্তন অধিনায়ক ঝুলন

    টস করলেন প্রাক্তন অধিনায়ক ঝুলনলর্ডসে থামল চাকদা এক্সপ্রেস, ঝুল-‌দির বিদায়ে চোখে জল হরমনপ্রীতদের দ্য ক্যালকাটা মিরর : ছেলেদের এবং...

    সমবেত গীতা পাঠ , মন্ত্রমুগ্ধ বিশ্ব

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : সমবেত গীতা পাঠে বিশ্ব রেকর্ড। আমেরিকার মাটিতে দাঁড়িয়ে স্পষ্ট সংস্কৃত উচ্চারণে একসঙ্গে গীতাপাঠ করল...

    চোখে জল, মুখে হাসি! বিদায়বেলায় ফেডেরারই ‘রাজা’

    দ্য ক্যালকাটা মিরর : ফেডেরারকে ঘিরে আবেগের বিস্ফোরণ ঘটল লেভার কাপে। নাদাল, জোকোভিচদের কাঁধে চড়ে বিদায় নিলেন ফেডেরার।...

    বার্লিন ম্যারাথনে নামছেন কাকা

    বার্লিন ম্যারাথনে নামছেন কাকাব্রাজিল ফুটবল তারকা কাকার বাবাও হাঁটবেন ম্যারাথনে দ্য ক্যালকাটা মিরর : বার্লিন ম্যারাথনে দেখা যাবে কাকার...