22 C
Kolkata
Tuesday, January 25, 2022
More

    এক বিকেলে বর্তির -বিলে । অভিজিৎ আঢ্য ।

    বিজয়ার সুর আকাশে বাতাসে । এবার উমার ঘরে ফেরার পালা । বাঙালি ব্যাগ বাটরা নিয়ে আগেই বেরিয়ে গেছে পাহাড়ে-সাগরে । কেউ কেউ আবার ঘরে ফেরার ট্রেনও ধরেছে । করোনাকে নো পরোয়া । অনেকের ইচ্ছে থাকলেও শুধু বেরোতে পারেননি পকেটের ভাড়ার শূন্য থাকায় । তাই যারা দুধের স্বাদ ঘোলে মেটাতে চান তারা পকেটে মাত্র ৩০০ টাকার পুঁজি নিয়ে সারাদিনের জন্য ঘুরে আসতে পারেন বর্তির বিল থেকে । আপনি নিরাশ হবেন না হলফ করে বলতে পারি ।

    ছবি :অভিজিৎ আঢ্য

    বর্তির বিলে আপনাকে স্বাগত জানাবে সারি সারি তাল গাছ। দিগন্ত বিস্তৃত আকাশ মেঘেদের ভেলা ভাসিয়ে দিয়েছে । সারি সারি ডিঙি নৌকা অপেক্ষা করে আছে সাদা , বেগুনি শালুকের বর্তির -বিলে আপনাকে নিয়ে পাড়ি জমাবে বলে । বিলের নীল স্বচ্ছ জলে মেঘেদের প্রতিচ্ছবির সঙ্গে খুঁজে পেলেও পেতে পারেন হারিয়ে যাওয়া নিজেকে ।

    ছবি :অভিজিৎ আঢ্য

    একটা সোনালী বিকেল ,পাখিদের ঝাঁক , আর টলটল জলে নৌকা বিহার সৃষ্টি করে এক অমোঘ অনুভূতি । গোধূলি বেলায় গরুর পাল নিয়ে রাখালের ঘরে ফেরা , শালুক ভর্তি ডিঙি নৌকা নিয়ে ফেরে রতনপুর বা বেড়াবেড়িয়া গ্রামের কোনো গৃহবধূ , জেলে নৌকা ফেরে মাছ নিয়ে । চারিদিক লাল রঙে রাঙিয়ে দিয়ে অস্ত যায় সূর্য । আলো নিভতেই কেটে যায় ঘোর ।

    ছবি :অভিজিৎ আঢ্য

    বর্তির বিল নোয়াই খাল দ্বারা যুক্ত রয়েছে হুগলী নদীর সাথে । এই মৃতপ্রায় খালটি কে গতবছরই সংস্কার করা হয়েছে । এই বিলটিকে অনেকেই এশিয়ার সব থেকে বড় বিল বলে অভিহিত করে থাকেন । বর্তির বিলের আশপাশের মানুষের জীবন জীবিকা এই বিলের উপর প্রত্যক্ষ ভাবে নির্ভরশীল । বিলে মাছের প্রাচুর্যের জন্য স্বাবাবিক ভাবেই মাছ ধরা এখানের মানুষের একটি প্রধান জীবিকা হয়ে দাঁড়িয়েছে ।এখানে চোখে পড়ে প্রচুর ফিশিং নেট । শুধু তাই নয় শাপলা সংগ্রহ করেও প্রচুর মানুষ তাদের জীবিকা নির্বাহ করে থাকেন । শীতকালে এখানে প্রচুর পিঁয়াজ চাষ হয়ে থাকে ,এছাড়াও চাষ হয় প্রচুর পরিমানে শাক সবজি ।

    ছবি :অভিজিৎ আঢ্য


    বছর তিনেক আগেও এখানে হাতে গোনা কয়েকজন ওয়াইল্ড লাইফ ফটোগ্রাফার ছাড়া তেমন কেউ আসতেন না । কিন্তু এখন বর্তির বিলে ভিড় চোখে পড়ার মত । শনিবার -রবিবার এখানে মানুষের মেলা বসে । এখানে শীতকালে মধ্যে এশিয়া ও সাইবেরিয়া থেকে অনেক পরিযায়ী পাখি আসে । যদিও এখন তার পরিমান কমে গেছে অনেকটাই । কিছু অসাধু মানুষ জাল পেতে পাখি ধরে চলেছে অবিরাম । বন দপ্তর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে ক্রমাগত ,এখনও পুরোপুরি বন্ধ করা যায়নি চোরা শিকার ।

    আরও পড়ুন : দাওয়াইপানির দিনরাত্রি – অভিজিৎ আঢ্য

    ছবি :অভিজিৎ আঢ্য

    খুবই দুঃখের বিষয় যে , এক সময় এখানকার মানুষ বর্তির বিলের স্বচ্ছ চল পানীয় হিসাবে ব্যবহার করতো কিন্তু এখন এখানে তৈরী হয়েছে কিছু কারখানা আর সেই সব কারখানা থেকে নির্গত বর্জ্য দূষিত করছে বর্তির বিলের জলকে । হারিয়ে যাচ্ছে গ্রাম বাংলার খোলসে , কেঁকলে , গুতেলর মতো অনেক মাছ ।

    ছবি :অভিজিৎ আঢ্য


    কিভাবে যাবেন :

    কিভাবে যাবেন : শিয়ালদা থেকে ট্রেনে এলে ব্যারাকপুর বা বারাসাত আসতে হবে । বারাকপুর বা বারাসাত থেকে অটোতে ২০ মিনিটের যাত্রা পথ নীলগঞ্জ । সেখানে নেমে অটো বা টোটো নিয়ে নিন তারাই আপনাকে বর্তির বিলে পৌঁছে দেবে । টোটো -অটো রিজার্ভ না করে রতনপুর বাজারে নেমে যান । সেখান থেকে পায়ে হেঁটে ১০ মিনিটেই পচে যাবেন বর্তির বিলে । সার সার নৌকা আছে সেখানে যে কোনো একটি ভাড়া করে নিন । ঘন্টায় ১০০- ১৫০ টাকা হিসাবে ।ফেরার পথে জেলেদের কাছ থেকে জ্যান্ত কৈ , সিঙ্গি বা শোল মাছ কিনে নিতেই পারেন । অনেকটাই সস্তা পাবেন বাজারের থেকে ।

    ছবি :অভিজিৎ আঢ্য


    অবশ্যই সঙ্গে আনবেন , জলের বোতল , ছাতা আর ড্রাই ফুড । মাস্ক তো মাস্ট । সঙ্গে আনতে পারেন কিছু লজেন্স , গ্রামের বাচ্চাদের দিতে পারলে নিজেও খুশি হবেন । ভিড় এড়িয়ে যেতে চাইলে উইকেন্ডে না যাওয়াই ভালো ।

    Related Posts

    Comments

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    সেরা পছন্দ

    দেশে একধাক্কায় অনেকটা কমল করোনা সংক্রমন , বাড়ছে সুস্থতা

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : স্বস্তি জাগিয়ে একধাক্কায় অনেকটা কমল দেশের দৈনিক সংক্রমণ। গত কয়েকদিন ধরে নিম্নমুখী দেশের করোনা...

    কাপড়ের মাস্ক পুরোপুরি আটকাতে পারবে না করোনা সংক্রমন , বলছে বিশেষজ্ঞরা

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : করোনা ঠেকাতে মাস্ক আবশ্যক। একথা প্রথম দিন থেকে বলে আসছেন বিশেষজ্ঞরা। উৎসবের দিনে বেশিরভাগ...

    পিছু ছাড়ছে না শীতের বৃষ্টি , তবে পরশু থেকে হাওয়া বদল

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : শীতেও পিছু ছাড়ছে না বৃষ্টি। মঙ্গলবারও মেঘলা আকাশ সঙ্গে দু-এক পশলা বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে...

    রাজ্যে আরও কমল করোনা সংক্রমন , ঊর্ধ্বমুখী সুস্থতা

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : একটু একটু করে সুস্থতার পথে বাংলা। এক ধাক্কায় অনেকটা কমল রাজ্যের সংক্রমণ। গত ২৪...

    কাদের ওমিক্রনে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি ? কি বলছে WHO

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : ডেল্টার তুলনায় কম ক্ষতিকর, উপসর্গ মৃদু হলেও কিন্তু ডেল্টার তুলনায় কয়েক গুণ দ্রুত ছড়াচ্ছে...