22 C
Kolkata
Thursday, January 27, 2022
More

    শিক্ষক দিবসে শুভেচ্ছা, ‘বেকার’ কোচ রুমা ঘোষের লড়াই চলছে – নির্মলকুমার সাহা

    ফুটবল খেলে প্রতিষ্ঠা পাবেন, একসময় এরকম স্বপ্ন দেখেছিলেন। বারাসত যুবক সঙ্ঘ, ইস্টবেঙ্গল, বালি গ্রামাঞ্চল— নানা দলের হয়ে খেলেছেন। প্রতিনিধিত্ব করেছেন বাংলারও। ছিলেন রাইট ব্যাক। বাংলায় মহিলা ফুটবলারদের চাকরির পথটা মসৃণ নয়। তাই মাঠে সাফল্য পেলেও আর্থিক নির্ভরতা পাননি। ২০১৩ সালে খেলা থেকে অবসর নেন। কিন্তু ফুটবলের প্রতি ভালবাসার টানেই থেকে যান মাঠেই। পরের বছর থেকে কুন্তলা ঘোষদস্তিদারের প্রেরণায় কোচিংয়ে চলে আসেন। ২০১৮ সালে এ এফ সি-‌র ডি লাইসেন্স কোর্সও করেন। কিন্তু এতে পেট ভরছে না রহড়ার শরৎ বোস কলোনির রুমা ঘোষের। ‘‌বেকার’‌ শব্দটা ওঁর জীবনের অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে উঠেছে।

    ১৯৯২ সালে প্রমথনাথ ঘোষ মারা যান। তখন তাঁর ছোট মেয়ে রুমার বয়স ৭-‌৮ বছর। সংসারে তখন থেকেই টানাটানি। স্বামী মারা যাওয়ার পর রুমার মা আভারানী ঘোষ ফ্যামিলি পেনশন পেতেন। তাতেই চলত ছেলেমেয়েদের নিয়ে সংসার। আভারানী মারা যান ২০০৬ সালে। সেই থেকে নিঃসঙ্গ হয়ে পড়েন রুমা। সংসারের আর্থিক সমস্যার মাঝেও কখনও ফুটবল মাঠে যাওয়া বন্ধ করেননি। ফুটবল খেলা ছেড়ে যখন কোচিংয়ে এলেন বাগুইআটির বিগবাজারে সিকিউরিটি গার্ডের একটা কাজ জুটিয়ে নিয়েছিলেন। ওখানে তিন বছর কাজ করেছেন। তারপর ২০১৭ সালের জানুয়ারি মাসে ওই কাজ ছেড়ে কোচিংয়ের টানে চলে যান ছত্তিশগড়ে। ওখানে সুকমা ফুটবল অ্যাকাডেমির উদ্বোধন হয় সেবছর ২৬ জানুয়ারি। শুরুর দিন থেকেই ওখানে কোচ হিসেবে যোগ দেন। ওখান থেকে এসেই ২০১৮ সালে করে যান এ এফ সি-‌র ডি লাইসেন্স কোর্স। ২০১৯-‌এর ৩১ আগস্ট পর্যন্ত সুকমা ফুটবল অ্যাকাডেমির সঙ্গে চুক্তি ছিল। সেই মিয়াদ শেষ হওয়ার পর ফিরে আসেন রহড়ার বাড়িতে। তখন থেকেই একবছর হয়ে গেল বেকার। অনেক চেষ্টা করেও আর কোথাও কোচিংয়ের নতুন কাজ পাননি। যখন দু-‌এক জায়গায় কথাবার্তা একটু এগোচ্ছিল, তখনই শুরু হয়ে যায় লকডাউন।

    ৩৫ বছর বয়সী এই কোচ এখন ময়দানের মূলস্রোত থেকে অনেকটা দূরে। কিন্তু ফুটবল থেকে, কোচিং থেকে কী করে নিজেকে দূরে সরিয়ে রাখবেন?‌ ছত্তিশগড় থেকে ফিরেই পাড়ার মাঠে কয়েকটা মেয়েকে ট্রেনিং দিতে শুরু করেছেন। রুমা বলছিলেন, ‘‌অনেক সমস্যার মুখে পড়েছি। কিন্তু লড়াই চালিয়ে গেছি। সবসময় সামনের দিকেই তাকাতে শিখেছি ঝুমাদি-‌র (‌কুন্তলা ঘোষদস্তিদার)‌ কাছ থেকে। আশায় আছি, লকডাউন শেষ হলে কোথাও কোচিংয়ের একটা কাজ পেয়ে যাব। ততোদিন কোচিংয়ের অভ্যাসটা বজায় রাখছি পাড়ার মাঠে ওদের নিয়ে।’‌

    আজ শিক্ষক দিবসেও ওদের নিয়ে মাঠে নামবেন রুমা। থাকবেন কোচের ভূমিকায়।

    এই ‘‌বেকার’‌ কোচকে শিক্ষক দিবসে আন্তরিক শুভেচ্ছা। ভাল থাকুন। লকডাউনের পর আবার আপনি ‘‌কাজ’‌ পেয়ে মাঠে ফিরুন।

    Related Posts

    Comments

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    সেরা পছন্দ

    করোনা সংক্রমনের লক্ষণ ফুটে উঠতে পারে ত্বকে ? কি বলছেন বিশেষজ্ঞরা

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : করোনা সংক্রমনের লক্ষণ শুধু শ্বাসযন্ত্রের মধ্যে সীমাবদ্ধ নয়। শরীরের বিভিন্ন অংশে ফুসকুড়ি, মাথাব্যথা, পেশী...

    করোনা আবহে বাচ্চাদের সাধারণ সর্দি-কাশি হলে কি করবেন ? দেখুন কেন্দ্রের নির্দেশিকা

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : বাচ্চাদের সাধারণ সর্দি-কাশি হলে ব্যস্ত হয়ে পড়েন বাবা-মায়েরা। করোনা আবহে সামান্য অসুস্থতাও চিন্তা বাড়াচ্ছে...

    সাঁওতালি সাহিত্যে অবদানের জন্য পদ্মশ্রী সম্মানে ভূষিত হলেন ঝাড়গ্রামের সাঁওতালি ভাষার কবি-সাহিত্যিক কালীপদ সোরেন

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : সাঁওতালি সাহিত্যে অবদানের জন্য পদ্মশ্রী সম্মানে ভূষিত হলেন ঝাড়গ্রামের সাঁওতালি ভাষার কবি-সাহিত্যিক কালীপদ সোরেন।...

    ধীরে ধীরে নামবে তাপমাত্রা , শেষ লগ্নে জাঁকিয়ে পড়তে পারে শীত

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : বৃষ্টির ভ্রুকুটি সরছে না রাজ্যের উপর থেকে। প্রজাতন্ত্র দিবসের দিনও দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টির পূর্বাভাস দিল...

    দেশে আবারও বাড়ল করোনা সংক্রমণ , বাড়ছে সুস্থতা

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে বাড়ল করোনা সংক্রমণ। দৈনিক কোভিড গ্রাফ একধাক্কায় বাড়ল ১১.৭ শতাংশ।...