21 C
Kolkata
Tuesday, November 29, 2022
More

    জ্যোতির্ময়ী ব্যস্ত রাজনীতির ট্র্যাকে, ছেলে শুটিং রেঞ্জে- নির্মলকুমার সাহা

    করোনাকালের মাঝেই এখন শারদোৎসব। বি জে পি-‌তে যোগ দেওয়ার পর জ্যোতির্ময়ী শিকদার ব্যস্ত কখনও মাস্ক, স্যানিটাইজার বিতরণে। আবার কখনও ত্রাণ নিয়ে হাজির অসহায় মানুষের কাছে। আর পুজোর আগে অনেকটা সময় কেটে গেছে বস্ত্র বিতরণে। বৃহস্পতিবার ষষ্ঠীর সারাদিন কেটেছে মন্ডপে মন্ডপে। না, ঠাকুর দেখার জন্য নয়। বিশ্ব হিন্দু পরিষদ দেবে সেরা পুজোর পুরস্কার। তার নির্বাচক মণ্ডলীতে আছেন তিনি। তাই শহরেরে একপ্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে সেরা বাছার দৌড়।

    দলের নেতা-‌কর্মীদের সঙ্গে ত্রাণ বিতরণে ছিলেন জ্যোতির্ময়ী

    শুক্রবার মানে আজ ও বের হতে হবে ওই একই কাজে। ১৯৯৮-‌এ ব্যাঙ্কক এশিয়াডে জোড়া সোনাজয়ী জ্যোতির্ময়ী এখন রাজনীতিতে বি জে পি পরিবারে। করোনা-‌আতঙ্কের মাঝেই সোনার মেয়ে যোগ দিয়েছেন পদ্ম শিবিরে। সেই থেকেই নিজেকে ব্যস্ত রেখেছেন দলের নানা কাজে। করোনার পাশাপাশি আমফানের তাণ্ডবের শিকার হয়েছিলেন অজস্র মানুষ। গোসাবা-‌সহ বিভিন্ন অঞ্চলে দলের নেতা-‌কর্মীদের সঙ্গে ত্রাণ বিতরণে ছিলেন জ্যোতির্ময়ী।

    রাজ্যের আরও কিছু অঞ্চলেও একই ভূমিকায় দেখা যায় তাঁকে। আর ছিল শহর থেকে গ্রাম, মাস্ক-‌স্যানিটাইজার বিতরণ। কখনও হাজির রক্তদান শিবিরে রক্তদাতাদের উৎসাহ দিতে। এরই মধ্যে চলে আসে বাঙালির সেরা উৎসব। এবার তো মহালয়া ছিল পুজোর এক মাস আগে। তখন থেকেই শুরু হয়ে যায় জ্যোতির্ময়ীর দৌড়। গরীব মানুষের হাতে পুজোর উপহার হিসেবে বস্ত্র তুলে দেওয়া। বি জে পি-‌র মহিলা মোর্চার উদ্যোগে নদীয়ার চাকদহ বিধান সভার তাতলায় একটি বড় অনুষ্ঠানে একহাজার মহিলার হাতে নতুন বস্ত্র তুলে দেওয়া হয়। ওখানেও ছিলেন জ্যোতির্ময়ী। ওই একই দিনে শিমুড়ালির ঘেটুগাছি এলাকাতেও বস্ত্র বিতরণে ছিলেন তিনি। এছাড়া প্রায় প্রতিদিনই দৌড়তে হচ্ছে নানা জায়গায়। সোনার মেয়ে বলছিলেন, ‘‌আমি সবসমই মানুষের জন্য কাজ করতে ভালবাসি। মানুষের পাশে থাকতে চাই। সেই কাজটা করতে পেরে ভাল লাগছে। আনন্দ পাচ্ছি।’‌ বি জে পি-‌তে যোগ দেওয়ার পর থেকে এভাবেই নিজেকে ব্যস্ত রেখেছেন দলের নানা কাজে। সম্প্রতি করোনায় আক্রান্ত হন বি জে পি-‌র রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তাঁর আরোগ্য কামনায় বাড়িতে যজ্ঞের আয়োজনও করেছিলেন সোনার মেয়ে।

    মা জ্যোতির্ময়ী ও বাবা অবতার সিং, দুজনই ছিলেন অ্যাথলিট। ওঁদের ছেলে অভ্রজ্যোতি কিন্তু মা-‌বাবার মত অ্যাথলেটিক্সে নেই। নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে চাইছে শুটার হিসেবে। জয়দীপ কর্মকার শুটিং অ্যাকাডেমির শিক্ষার্থী অভ্রজ্যোতি এরই মধ্যে বয়সভিত্তিক পর্যায়ে রাজ্য ও পূর্বাঞ্চল চ্যাম্পিয়নশিপে একাধিক সোনা জিতেছে। ছেলের উৎসাহ দেখে মা-‌বাবা সল্টলেকের বাড়িতেই করে দিয়েছেন শুটিং রেঞ্জ, জিম। করোনা-‌আতঙ্কে সবার যখন বাইরে যাওয়া বন্ধ, অভ্রজ্যোতির নিজের বাড়ির রেঞ্জে অনুশীলন চালিয়ে যেতে অসুবিধা হয়নি। এখন মা যখন সারাদিন দলের কাজে এখানে ওখানে ছুটছেন, ছেলে নিজেকে ব্যস্ত রাখছে কখনও শুটিং রেঞ্জে, আবার কখনও জিমে।

    ছেলে অভ্রজ্যোতি বয়সভিত্তিক পর্যায়ে রাজ্য ও পূর্বাঞ্চল চ্যাম্পিয়নশিপে একাধিক সোনা জিতেছে।

    Related Posts

    Comments

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    সেরা পছন্দ

    চাঁদে পাকাপাকি ভাবে থাকবে মানুষ !

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : চাঁদের মাটিতে শেষবার মানুষ পা রেখেছিল গত অর্ধ শতাব্দী আগে। এই বার সেখানে ঘর-বাড়ি...

    নির্দিষ্ট কিছু পুরনো কয়েন সরিয়ে ফেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে RBI !

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : ১ টাকা এবং ৫০ পয়সা মূল্যের নির্দিষ্ট কিছু পুরনো কয়েন সরিয়ে ফেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে...

    স্বামী বিবেকানন্দর পুনর্জন্ম মোদী , বেফাঁস মন্তব্য রাহুল সিনহার

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : বেফাঁস বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা। স্বামী বিবেকানন্দ পুনর্জন্ম নিয়ে ফিরে এসেছেন নরেন্দ্র মোদি রূপে,...

    বিশ্বকাপে আফ্রিকান দাদাগিরি ! বেলজিয়ামকে ঘায়েল করল মরক্কো

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : মরক্কো ২ আবদেলহামিদ সাবিরি (৭৩’), জাকারিয়া আবৌখাল (৯০+২’)  বেলজিয়াম ০

    ইন্ডিয়ান সুপার লিগে বিরাট জয় পেল ইস্টবেঙ্গল

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : ধারাবাহিকতার অভাবে ভুগছিল ইস্টবেঙ্গল। ইন্ডিয়ান সুপার লিগে অ্যাওয়ে ম্যাচে জামশেদপুর এফসির বিরুদ্ধে নেমেছিল ইস্টবেঙ্গল।...