21 C
Kolkata
Tuesday, November 29, 2022
More

    বাবার আয় বন্ধ, ঠিক মতো খাবার নেই, অরুণ কিন্তু দৌড়চ্ছে সমুদ্র সৈকতে – নির্মলকুমার সাহা

    মন্দারমণির লাগোয়া দাদনপাত্রবাড় গ্রাম। ওখানকার প্রায় সবাই মৎসজীবী, চাষী। কখনও সমুদ্রে মাছ ধরতে যান, কখনও আবার চাষ করেন। এভাবেই চলে সংসার। সন্তোষকুমার সাউ-‌ও ব্যাতিক্রম নন। কিন্তু করোনার জেরে এবং আমফানের ধাক্কায় থমকে গিয়েছে ওই গ্রামের মানুষের জীবনযাত্রা। দারিদ্র‌্য ছিলই। সেটা আরও বেড়েছে। বেশি সমস্যায় পড়েছেন সন্তোষকুমার। কারণ তাঁর ছেলে অরুণকুমার সাউ বাংলার অন্যতম সম্ভাবনাময় অ্যাথলিট। খেলাধুলোর জন্য অরুণের দরকার পুষ্টিকর খাবার। সংসার চালাতেই হিমশিম খাচ্ছেন সন্তোষকুমার। কোথায় পাবেন ছেলের জন্য আলাদা খাবার?‌

    পরপর তিন বছর রাজ্য অ্যাথলেটিক্স প্রতিযোগিতায় বয়সভিত্তিক বিভাগে অরুণ সোনা জিতেছে। ২০১৭ ও ২০১৮ সালে অনূর্ধ্ব ১৬ বিভাগে ২০০০ মিটারে এবং ২০১৯ সালে অনূর্ধ্ব ১৮ বিভাগে ৩০০০ মিটারে। এবছর তো রাজ্য মিট বিশ বাঁও জলে। গত বছর রাজ্য মিটে অংশ নিয়েছিল এরিয়ান ক্লাবের হয়ে। রাজ্য স্কুল অ্যাথলেটিক্সেও পরপর দু’‌বছর সোনা জিতেছে। ২০১৮ ও ২০১৯ সালে ৩০০০ মিটার দৌড়ে। অংশ নিয়েছে বাংলার হয়ে জুনিয়র জাতীয় অ্যাথলেটিক্সে। ক্রশকান্ট্রিতেও অরুণ বাংলার পরিচিত নাম। রাজ্য ক্রশকান্ট্রিতে ২০১৮ সালে অনূর্ধ্ব ১৬ বিভাগে (‌২ কিলোমিটার)‌ এবং ২০১৯ সালে অনূর্ধ্ব ১৮ বিভাগে (‌৬ কিলোমিটার)‌ প্রথম হয়েছে। জাতীয় ক্রশকান্ট্রিতেও বাংলার প্রতিনিধিত্ব করেছে।

    কালিন্দী ইউনিয়ন হাই স্কুলের একাদশ শ্রেণির ছাত্র অরুণ জানাল, লকডাউন শুরুর দিন থেকেই ওর বাবার সমুদ্রে মাছ ধরতে যাওয়া বন্ধ। অরুণ বলল, ‘‌এখন অন্য অনেকে যাওয়া শুরু করলেও বাবা যাচ্ছেন না। মাঝে চাষের কাজে যাওয়া শুরু হয়েছিল। কিন্তু আমফানে বাবার ক্ষেতের সব সবজি নষ্ট হয়ে গিয়েছে। জমিরও ক্ষতি হয়েছে। জমি ঠিক করে আবার চাষ সবে শুরু হয়েছে। বাবার এখন আয় বলতে কিছুই নেই!‌ ধার-‌দেনা করে আর ফ্রি রেশনে কোনওভাবে সংসার চালাচ্ছেন। আমরা দুমুঠো খেতে পাচ্ছি। বাবা কোথা থেকে ধার করছেন, কীভাবে শোধ করবেন, জানি না!‌’‌ 

    গ্রামের বাড়ি থেকে প্রায় তিন ঘণ্টার পথ পেরিয়ে কোলাঘাটে পূর্ণচন্দ্র প্রামাণিকের কাছে প্রশিক্ষণ নিতে আসাটা ছিল অরুণের রুটিন। মাঝেমধ্য আসত কালকাতায়ও। লকডাউনে সে সব বন্ধ। কিন্তু থেমে নেই ওর অনুশীলন। বাড়ি থেকে ২০০ মিটার এগোলেই সমুদ্র। প্রতিদিন সমুদ্র সৈকতে সেরে নিচ্ছে অনুশীলন। ১৭ পার হওয়া অরুণের এখনও ন্যাশনালে পদক জেতা হয়নি। শুধু ন্যাশনালে পদক জেতা নয়, ওর লক্ষ্য আরও অনেক উঁচুতে। অরুণ বলছিল, ‘‌বাড়ির অবস্থা এখন ভীষণ খারাপ। তবু প্র‌্যাকটিস আমাকে চালিয়ে যেতে হচ্ছে। প্র‌্যাকটিস ছাড়া তো আর স্বপ্নপূরণ হবে না।’‌

    Related Posts

    Comments

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    সেরা পছন্দ

    চাঁদে পাকাপাকি ভাবে থাকবে মানুষ !

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : চাঁদের মাটিতে শেষবার মানুষ পা রেখেছিল গত অর্ধ শতাব্দী আগে। এই বার সেখানে ঘর-বাড়ি...

    নির্দিষ্ট কিছু পুরনো কয়েন সরিয়ে ফেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে RBI !

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : ১ টাকা এবং ৫০ পয়সা মূল্যের নির্দিষ্ট কিছু পুরনো কয়েন সরিয়ে ফেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে...

    স্বামী বিবেকানন্দর পুনর্জন্ম মোদী , বেফাঁস মন্তব্য রাহুল সিনহার

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : বেফাঁস বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা। স্বামী বিবেকানন্দ পুনর্জন্ম নিয়ে ফিরে এসেছেন নরেন্দ্র মোদি রূপে,...

    বিশ্বকাপে আফ্রিকান দাদাগিরি ! বেলজিয়ামকে ঘায়েল করল মরক্কো

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : মরক্কো ২ আবদেলহামিদ সাবিরি (৭৩’), জাকারিয়া আবৌখাল (৯০+২’)  বেলজিয়াম ০

    ইন্ডিয়ান সুপার লিগে বিরাট জয় পেল ইস্টবেঙ্গল

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : ধারাবাহিকতার অভাবে ভুগছিল ইস্টবেঙ্গল। ইন্ডিয়ান সুপার লিগে অ্যাওয়ে ম্যাচে জামশেদপুর এফসির বিরুদ্ধে নেমেছিল ইস্টবেঙ্গল।...