27 C
Kolkata
Friday, May 27, 2022
More

    করোনা মহামারিতে উদ্বিগ্ন, বলিউডের মাদকে বিরক্ত রূপা- নির্মলকুমার সাহা

    তিনি উদ্বিগ্ন, চিন্তিত। তিনি বিরক্ত, হতাশ। তাঁর উদ্বেগ, চিন্তার কারণ বিশ্ব জুড়ে করোনা মহামারি। আর বিরক্তি, হতাশার কারণ বলিউডের মাদক কেলেঙ্কারি। তিনি রূপা মুখার্জি (‌ব্যানার্জি)‌। যিনি দীর্ঘ প্রায় পাঁচ দশক কানাডার টরন্টোর বাসিন্দা। প্রাক্তন এই টেবিল টেনিস তারকা ভারত ও কানাডা, দুই দেশেই জাতীয় চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন। দুই দেশের হয়েই খেলেছেন বিশ্ব টেবিল টেনিস চ্যাম্পিয়নশিপে।

    কানাডার টরন্টো থেকে ফোনে রূপা বলছিলেন, ‘‌গত কয়েকমাস ধরেই গভীর উদ্বেগে আছি। যেভাবে কোভিড থাবা বসিয়েছে, তাতে দিনদিন চিন্তা বাড়ছেই। আমার তিন দাদা তো আগেই মারা গেছেন। বড় দা (‌রাজেন মুখার্জি)‌ কলকাতায় থাকেন। আশি বছর বয়স হয়েছে। বেশি চিন্তা দাদাকে নিয়েই। এছাড়াও সারা ভারত, কানাডা তো বটেই, অন্য অনেক দেশেও আমার পরিচিত,বন্ধুরা আছেন। পরিচিত, অপরিচিত সবার জন্যই চিন্তা হয়।’‌

    উল্লেখ্য রূপার প্রয়াত বাকি তিন দাদাই (‌রবীন মুখার্জি, কাচ্চু মুখার্জি ও নাচ্চু মুখার্জি)‌ ছিলেন খেলোয়াড়। ক্রিকেটার রবীন রনজি ট্রফি খেলেছেন। কাচ্চু খেলতেন ক্রিকেট ও টেনিস। আর নাচ্চু ছিলেন টেবিল টেনিসের তারকা।

    স্বামী প্রসাদ ব্যানার্জি ও একমাত্র পুত্র রনিকে নিয়ে টরন্টোয় রূপার সাজানো সংসার। খেলা ছাড়ার পরও কানাডার খেলাধুলোর সঙ্গে একসময় ভালভাবেই জড়িয়ে ছিলেন। কানাডার টেবিল টেনিস দলের কোচ, ম্যানেজারও হয়েছিলেন। এখন আর সেভাবে খেলাধুলোর সঙ্গে জড়িয়ে নেই। তবে সব খোঁজখবর রাখেন।
    বললেন, ‘‌বয়স হচ্ছে। নভেম্বরে সাতষট্টি হবে। এই তো কোভিডের মাঝেই আগস্ট মাসে একটা অপারেশন হল। কোভিড আতঙ্ক তো আছেই। এখন বাড়িতেই আছি। খুব প্রয়োজন ছাড়া বাড়ি থেকে বের হচ্ছি না।’‌ স্বামী প্রসাদ ব্যানার্জির বিশ্ব ভ্রমণের নেশা। তিনিও এখন বাড়িতে বন্দি।

    রূপা একসময় Ontario Public Service Employees Union-‌এ চাকরি করতেন। ৪০ বছর চাকরি করার পর অবসর নিয়েছেন। ওখানেই এখন চাকরি করেন রূপার ছেলে রনি। করোনাকালে তাঁকে অবশ্য আর অফিসে যেতে হচ্ছে না। বাড়িতে বসেই অফিসের কাজ করছেন।

    করোনায় কানাডার পরিস্থিতি কেমন?‌ রূপা বললেন, ‘‌প্রথম দিকে প্রচুর আক্রান্ত হয়েছিল। পরে অনেকটাই কন্ট্রোলে আসে। টুকটাক খেলাধুলোও শুরু হয়েছিল। কিন্তু এখন আবার বাড়াবাড়ি। আক্রান্তের সংখ্যা প্রতিদিন বাড়ছে। টরন্টোতেই প্রতিদিন ২০০/‌২৫০ জন আক্রান্ত হচ্ছে। চিন্তা বাড়ছে।’‌

    কানাডায় বসেও বাংলা, ভারতের সব খবর রাখেন নিয়মিত। জানালেন, অনেকের সঙ্গেই ফোনে কথা হয়। একটানা বলে গেলেন, ‘‌কেটি খোদাইজি, ইন্দু পুরি, অমৃত খোসলা, দিলীপ মুখার্জি, রথীন মুখার্জি, সাধন দত্ত, দিলীপ সিনহা, জ্ঞান মল্লিক, চিত্তদা (‌চিরঞ্জীব)‌, রবিদা, গোপীদা, প্রবীরদা, ইন্দ্রজিৎ বঙ্গ, বিন্দু বঙ্গ, অনির্বাণ ঘোষদস্তিদার, দীপক চ্যাটার্জি, এরকম আরও কয়েকজনের সঙ্গে যোগাযোগ আছে। আর আমার বড়দা, পরিবারের লোকদের সঙ্গে তো কথা হয়ই। এখানে থেকে কলকাতাকে ভীষণ মিস করি।’‌

    একটু থেমে আবার বলতে শুরু করলেন, ‘‌শুনছি কলকাতার অবস্থাও ভাল নয়। বাংলায় পুজো এসে গেছে। শুনলাম, এরমধ্যেও পুজো নিয়ে উৎসাহের শেষ নেই। কী জানি কেন!‌ একবার নমঃ নমঃ করে ঘটপুজো করলে কী হত!‌ বাংলায় পুজোয় তো প্রচুর টাকা খরচ হয়। অনেক মানুষের কাজ নেই, আয় নেই, খাবার জুটছে না। ঘটা করে পুজো না করে ওই টাকা গরীবদের দিলে সেটা অনেক অনেক ভাল কাজ হত। ‌আসলে মানুষ সচেতন না হলে কিছু করার নেই।’‌‌

    একদা বাংলার টেবিল টেনিসের সেরা তারকা এখন সময় কাটাচ্ছেন টিভিতে খেলা দেখে। দর্শকহীন মাঠের খেলা তাঁর একদমই ভাল লাগছে না। বললেন, ‘‌মাঠে দর্শক না থাকলে খেলার আকর্ষণ অনেক কমে যায়। টিভিতে দেখেও সেরকম আনন্দ পাওয়া যায় না। ‌কী আর বলব, সব মিলিয়ে এই করোনা পরিস্থিতিতে মন একদমই ভাল নেই।’‌

    নিজেই তুললেন বলিউডের মাদক কেলেঙ্কারির প্রসঙ্গ। বিদেশে বসে দেশের এই কেলেঙ্কারির কথা শুনতেও তাঁর ভাল লাগছে না। বললেন, ‘যাঁরা সিনেমা ভালবাসেন তাঁদের কাছে বলিউডের আলাদা গুরুত্ব আছে। আগেরদিনের অভিনেতা-‌অভিনেত্রীদের কত সুনাম ছিল। তাঁরা সমাজে আলাদা সম্মান পেতেন। এই ড্রাগ কেলেঙ্কারি সব নষ্ট করে দিল। কোথায় যাচ্ছে বলিউড!‌ জীবনে কোনওদিন এসব শুনতে হবে, ভাবিনি!‌ বিদেশে আমাদের লজ্জায় পড়তে হচ্ছে। দেশের নাম খারাপ হচ্ছে।’‌

    ওখান থেকেই গেলেন টলিউডে। বললেন, ‘‌আমাদের কলকাতায় এসব নেই। কলকাতার জন্য আমার গর্ব হয়। বহু বছর দেশের বাইরে তবু বাংলা সিনেমা এখনও আমাকে টানে। এখনও সময় পেলে উত্তম-‌সুচিত্রার বই দেখি। মন ভরে যায়।’‌

    Related Posts

    Comments

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    সেরা পছন্দ

    করোনা আবহে উদ্বেগ বাড়াচ্ছে ‘টম্যাটো ফ্লু’ , কি কি সতর্কতা অবলম্বন করবেন ?

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : এতদিন গ্রামের শিশুরা সংক্রমিত হত। খাস কলকাতার খুদেরাও আক্রান্ত হচ্ছে ভাইরাস ঘটিত ‘হ্যান্ড, ফুট...

    যারা “আইন” মেনে চলে তাদের জন্যই গ্রাহ্য মৌলিক অধিকার , পর্যবেক্ষণ সুপ্রিম কোর্টের

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : সাম্প্রতিককালে সামাজিক মাধ‌্যমে আপত্তিকর পোস্ট গুলিও ‘বাকস্বাধীনতার’ অধিকারের আড়ালে আশ্রয় নিয়ে বাঁচার চেষ্টা করে।...

    আইনি স্বীকৃতি পেলেন যৌনকর্মীরা , দেহ ব্যবসাকে পেশা হিসাবে স্বীকৃতি দিল সুপ্রিম কোর্ট

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : দীর্ঘ লড়াইয়ের পর আইনি স্বীকৃতি পেলেন যৌনকর্মীরা। দেহ ব্যবসাকে আর পাঁচটা সাধারণ কাজের মতো...

    অতীতে এলিয়েন বার্তা এসেছিল পৃথিবীতে , গবেষণায় চাঞ্চল্যকর তথ্য

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : প্রায় অর্ধশতক আগে এলিয়েন বার্তা এসেছিল পৃথিবীতে। বার্তার স্থায়িত্ব ছিল মাত্র ৭২ সেকেন্ড। বিগ...

    ফের বেসরকারিকরণের পথে রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা ! তালিকায় আর কোন কোন সংস্থা ?

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : ফের বেসরকারিকরণের পথে একটি রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা। এবার হিন্দুস্তান জিঙ্ক। দেশের বৃহত্তম ইন্টিগ্রেটেড জিঙ্ক প্রস্তুতকারী...