30 C
Kolkata
Thursday, June 30, 2022
More

    ডেঙ্গু বা জিকা এই শব্দগুলো কী তাহলে অতীত হতে চলেছে!

    দ্য ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো :ডেঙ্গু বা জিকা এই দুটিই মারণ রোগের দুই কুখ্যাত নাম। দুটোই এডিস ইজিপ্টিনামক স্ত্রী মশার দ্বারা বাহিত। তবে ভার্জিনিয়ার গবেষকরা ঘটিয়ে ফেলেছেন এক অভূতপূর্বঘটনা। কী সেই ঘটনা জেনে নেব বিস্তারে।   আমার জানি যে পুরুষমশার কামড় দেয় না এবং মানুষের মধ্যে রোগজীবাণু সংক্রমণ করতে অক্ষম হয়। অন্যদিকেমহিলা মশা কামড় দিতে সক্ষম। আর মশার প্রজাতির এই জন্মগত গুণটিকে হাতিয়ার করেই ভার্জিনিয়ারগবেষকরা ঘটিয়ে ফেলেছেন বিপ্লব।  এই টেক গবেষকরা প্রমাণকরেছেন যে একটি একক জিন মহিলা এডিস ইজিপ্টি মশাটিকে বংশবৃদ্ধিতে সক্ষম পুরুষ মশাতেরূপান্তর করতে পারে এবং পুরুষ মশার উড়ানের জন্য প্রয়োজনীয় জিন গুলিকেও সনাক্তকরতে পারে। সাধারণভাবে মহিলা এডিসইজিপ্টি মশার ডিম উত্পাদনের জন্য রক্তের প্রয়োজন হয়। এই রক্তই কুখ্যাত প্যাথোজেনগুলিরপ্রধান বাহক হিসাবে ব্যবহৃত হয় যা মানুষের মধ্যে জিকা এবং ডেঙ্গু জ্বরের রোগ বিস্তারকরে।  ভার্জিনিয়ারজীবনবিজ্ঞান ও কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত অধ্যাপক জিয়াজিয়ান তু’র মতে- “এডিস ইজিপ্টির পুরুষ লিঙ্গনির্ধারক হিসেবে কাজ করে যে লোকাস গুলি সেগুলি এম-লোকস  নামে পরিচিত। এই এম-লোকাস শুধুমাত্র পুরুষবংশধর দ্বারাই বংশানুক্রমে প্রাপ্ত হয়। অনেক টা মানুষের ওয়াই ক্রোমোজোমেরমত।”  পূর্বে  আবিষ্কৃত এডিস ইজিপ্টীর মশার এম-লোকাসে  পুরুষ লিঙ্গ নির্ধারণের নিকস টিকে স্ত্রী মশারক্রমোজমাল অঞ্চলে প্রবেশ করিয়ে দেখা গিয়েছে যে সেটি স্ত্রী মশাকে সক্ষম পুরুষমশাতে খুব সহজেই রূপান্তরিত করতে পারছে। তাঁদের মতে এই পদ্ধতি অচিরেই মশারবংশবৃদ্ধি নিয়ন্ত্রনে বিশেষ ভূমিকা নেবে।   ন্যাশনাল একাডেমি অফসায়েন্সেসের প্রসিডিংস এ তাঁদের এই অনুসন্ধানগুলি প্রকাশিত হয়েছিল। একটি গবেষণা টু ল্যাবেরবিজ্ঞানী এবং কাগজে প্রথম লেখক, আজাদে আর্য বলেছেন যে “আমরা আরও আবিষ্কার করেছি যে পুরুষ মশার উড্ডয়নেজন্য মায়ো-সেক্স নামে একটি দ্বিতীয় জিনের প্রয়োজন ছিল। এই কাজটি এম লোকসের আণবিকক্রিয়াটির মূল ভিত্তির ওপর আলোকপাত করে, যাতে কমপক্ষে ৩০ টিজিন রয়েছে,”  আর্য এবং সহকর্মীরাএকাধিক ট্রান্সজেনিক মশার লাইন তৈরি এবং বৈশিষ্ট্যযুক্ত যা নিক্স জিনের নিজস্বপ্রবোটারের নিয়ন্ত্রণে অতিরিক্ত কপি প্রকাশ করেছিল। কলেজ অফ এগ্রিকালচার অ্যান্ডলাইফ সায়েন্সেসের এনটমোলজির সহকারী অধ্যাপক মারিয়া শারাখোভা এবং প্রাক্তন স্নাতকগবেষণা সহায়ক আনাসটাসিয়া নওমেনকো নিক্সের অতিরিক্ত অনুলিপিটির ক্রোমোসোমালসন্নিবেশকরণ সাইটটি ম্যাপ করেছেন। এই দলটি অদূরভবিষ্যতের গবেষনার দিকে নজর দেওয়ার সাথে সাথে তারা নিক্স জিনটি পুরুষ বিকাশেরপথটি সক্রিয় করার পদ্ধতিটি আবিষ্কার করতে চায়। দলটি একই বংশের মশার প্রজাতিরমধ্যে কীভাবে বিকশিত হয় সে সম্পর্কে জানতে আগ্রহী। মশার নিক্স জিনেরগভীরতায় ডুব দেওয়ার পাশাপাশি গবেষকরা আশা করছেন যে এই গবেষণাগুলি ভবিষ্যতেঅন্যান্য পোকার,  উভজীবী এবং গাছপালায় প্রাপ্ত সমকামি যৌনক্রোমোজোমের তদন্তকে তরান্বিত করবে। 

    Related Posts

    Comments

    LEAVE A REPLY

    Please enter your comment!
    Please enter your name here

    সেরা পছন্দ

    মহারাষ্ট্রে মহানাটকের ইতি ! ইস্তফা দিলেন উদ্ধব ঠাকরে

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : জল্পনায় ইতি টেনে ইস্তফা দিলেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে। বুধবার ফেসবুক লাইভে পদ ছাড়ার...

    সপ্তাহান্তে কলকাতায় বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা , বানভাসী উত্তরবঙ্গ

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : বর্ষাতেও চড়া রোদ। আর তার জেরে সকাল থেকেই গলদঘর্ম অবস্থা কলকাতা শহরে। ঊর্ধ্বমুখী তাপমাত্রা।...

    ভবিষ্যতে আসতে পারে আরও ভয়াবহ মহামারী , উদ্বেগ বিজ্ঞানীদের

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : গোটা বিশ্বকে আবার একটি অতিমারির জন্য প্রস্তুত থাকা উচিত। যে কোনও সময়ে এসে পড়তে...

    চেয়ারম্যান পদ থেকে ইস্তফা দিলেন জিও কর্ণধার মুকেশ আম্বানি

    দ্যা ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো : রিলায়েন্স জিও'তে বড়সড় রদবদল। চেয়ারম্যান পদ থেকে ইস্তফা দিলেন জিও কর্ণধার মুকেশ আম্বানি। এই...

    করোনা চতুর্থ ইনিংসে ঝোড়ো ব্যাটিং শুরু করে দিয়েছে।

    দ্য ক্যালকাটা মিরর ব্যুরো :করোনা তার চতুর্থ ইনিংসে ঝোড়ো ব্যাটিং শুরু করে দিয়েছে ইতিমধ্যেই । গত ২৪ ঘণ্টায় বাংলায় করোনা আক্রান্তে সংখ্যা...